মুরাদপুর ফুটওভার ব্রিজ: বাঁচবে সময়, বাঁচাবে জীবন

0

রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও দুর্ঘটনার শিকার হয় পথচারী। কেউ হয় পঙ্গু, আবার মৃত্যু হয় অনেকের। ফুটওভার ব্রিজ না থাকায় প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে নগরের ব্যস্ততম মুরাদপুর সড়ক পারাপার করে। এখানে সৃষ্টি হয় অসহনীয় যানজট। নগরবাসীর কথা চিন্তা করে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) মুরাদপুরে করছে ফুটওভার ব্রিজ। ব্রিজটি হলে নিশ্চিত দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পাবে সাধারণ মানুষ। হবে না যানজট। বাঁচবে মানুষের অনেক মূল্যবান সময়।

যানজট এড়াতে মুরাদপুরে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে কিছুদিন আগে। ব্রিজের নির্মাণকাজ আগামী দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে শেষ হবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

চউক এর প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান বলেন, কিছুদিন আগে মুরাদপুরে ফুটওভার ব্রিজটির নির্মাণ শুরু হয়। প্রায় ১০০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ১০ ফুট প্রস্থের ব্রিজটি নির্মাণ হবে স্টিল স্ট্রাকচারে। নির্মাণব্যয় ৬০ লাখ টাকা। অল্প টাকায় ভালো-টেকসই ব্রিজ নির্মিত হচ্ছে। নির্মাণকাজ শেষের দিকে। শীঘ্রই ব্রিজটি উদ্বোধন করা হবে।

এ ব্যাপারে চউক চেয়ারম্যান এম. জহিরুল আলম দোভাষ বলেন, মুরাদপুর ও জিইসি নগরের ব্যস্ততম এলাকা। ফুটওভার ব্রিজ না থাকায় এসব সড়কে হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পারাপার করে। এতে মারাত্মক যানজট সৃষ্টি হয়। যানজটে মানুষের অনেক মূল্যবান সময় গাড়িতেই চলে যায়। তাই নগরবাসীর সুবিধা এবং যানবাহন চলাচলে গতি আনতে ফুটওভার ব্রিজগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ফ্লাইওভারের নিচেও যান চলাচলে গতি এসেছে। ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের পর যানজট পুরোপুরি কমে যাবে।

এদিকে ফুটওভার ব্রিজ স্থাপনে নগরের সর্বস্তরের মানুষ খুশি। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রাজীব নন্দী বলেন, মুরাদপুরে ফুটওভার ব্রিজ ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবকসহ সর্বস্তরের মানুষের প্রাণের দাবি।

তিনি বলেন, চউক ব্রিজটি স্থাপনে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় ধন্যবাদ জানাই।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...