দুর্ভোগের পর প্রত্যাহার পরিবহন ধর্মঘট

0

চট্টগ্রাম-রাঙামাটি ও চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি মহাসড়কে ডাকা সকাল-সন্ধ্যা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের নেতারা। হাটহাজারীতে এক বাসচালককে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দেয়া ৩ মাস ১৩ দিনের কারাদণ্ডের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দুই পার্বত্য রুটে ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়।

ভোর ৬টা থেকে দুই পার্বত্য রুটে ধর্মঘট শুরু করেন পরিবহন শ্রমিকরা। পরে বেলা ২টায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়া হয় বলে এ প্রতিবেদকে নিশ্চিত করেন চট্টগ্রাম জেলা পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি মনজুর আলম মঞ্জু।

এরআগে চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি মহাসড়কে কোন ঘোষণা না দিয়ে পরিবহন শ্রমিকরা হঠাৎ করে ধর্মঘটের ডাক দেওয়ার কারণে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি মহাসড়কের বিভিন্ন গন্তব্যের যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দণ্ডপ্রাপ্ত চালকের মুক্তির দাবিতে সকাল থেকে ধর্মঘটের কারণে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের অক্সিজেন থেকে পার্বত্য জেলা রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ির যাত্রীদের পাশাপাশি হাটহাজারী উপজেলার হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ড, বড়দীঘির পাড়, নন্দিরহাট, নাজিরহাট ঝংকার মোড়, নতুন রাস্তার মাথা, ফটিকছড়ি, উত্তর রাউজান, উত্তর রাঙ্গুনিয়ার যাত্রীরা সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন।

তবে দুই মহাসড়কে কিছু কিছু এলাকায় সিএনজি অটোরিকশা, টেম্পুর মতো ছোট ছোট যানবাহন চলাচলে বাধা দেন পরিবহন শ্রমিকরা। এছাড়া অন্যান্য যানবাহন যাতে চলাচল করতে না পারে সেজন্য শ্রমিকরা বড় বড় যানবাহনকে মহাসড়কের মাঝখানে আড়াআড়ি রেখে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রাখে। তাই বাধ্য হয়ে অনেককে হেঁটে, রিকশায় চড়ে বেশি টাকা ভাড়া দিয়ে কর্মস্থল ও জরুরি প্রয়োজনে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে অক্সিজেন এলাকায় এসে তিন পার্বত্য জেলায় যাওয়ার কোনো গাড়ি পাননি বলে জানান হাটহাজারী উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আমান উল্লাহ। তিনি আরো জানান, রাউজান ও হাটহাজারীর বাসিন্দারা শহরমুখী গাড়ি না পাওয়ায় নগরীতে যেতে পারেননি।

চট্টগ্রাম জেলা বাস, মিনি বাস যানবাহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. জসীম উদ্দিন মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের আশ্বাসে আমরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছি। তবে আমাদের শ্রমিকদের গাড়ি কাগজপত্র ও ড্রাইভিং লাইন্সেস সব ঠিক থাকার পরেও প্রতিটি মোড়ে মোড়ে ড্রাইভারদের হয়রানি করা হয়। এসব হয়রানি অচিরেই বন্ধ করতে হবে।

এর আগে বুধবার (২৪ অক্টোবর) সড়কের সংকেত অমান্য করায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউল হক মীর চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি মহাসড়কের হাটহাজারী বাস স্টেশন চত্বরে মো. দিদারুল আলম (৪৫) নামের এক বাসচালককে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেন। এর প্রতিবাদে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেন পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ।

 

জয়নিউজ/পার্থ/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...