বান্দরবানের সাংবাদিক এনামুল হক কাশেমীর ইন্তেকাল

0

বান্দরবানের সিনিয়র সাংবাদিক এনামুল হক কাশেমীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার (৩১ অক্টোবর) সকাল পোনে ১১টায় শহরের হিলভিউ হাসপাতালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সকালে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত সাংবাদিক এনামুল হক কাশেমী’কে শহরের হিলভিউ হাসপাতালে নেয়ার পর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে সহকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজনরা হাসপাতালে ছুটে যান। সেখান থেকে তাকে হাফেজঘোনাস্থ নিজবাড়িতে নেয়া হয়। সেখানে তাকে শেষবারের মত দেখতে যান পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম চৌধুরী, পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাচিং প্রুজেরী, পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য শফিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি আব্দুর রহিম চৌধুরী, পৌর কাউন্সিলর হাবিবুর রহমানসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন।

পরে বিকালে সাড়ে ৩টায় তার মরদেহ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বান্দরবান প্রেসক্লাবের সামনে রাখা হয়। সেখানে গনমাধ্যমকর্মীদের বিভিন্ন সংগঠনগুলো ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। শেষবারের প্রিয় কাশেমীকে দেখতে ভীড় জমায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষজন। পরে আছরের নামাজের পর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে জানাযা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা নামাজের সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কমর্কর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার অসংখ্য মানুষ অংশ নেয়। সবশেষে গোরস্তান মসজিদস্থ কবর স্থানে তাকে দাফন করা হয়।

প্রসঙ্গত, সাংবাদিক এনামুল হক কাশেমী বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা বাসস, চট্টগ্রামের দৈনিক আজাদী, ইংরেজী দৈনিক ইন্ডিপেনডেন্ট পত্রিকায় দীর্ঘদিন ধরে বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এছাড়াও নতুন জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশের খবর এবং স্থানীয় দৈনিক নতুন বাংলাদেশ পত্রিকায় কর্মরত রয়েছেন। তার আগে দীর্ঘ ১৮ বছর কাজ করেছেন জাতীয় দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায়।

 

জয়নিউজ/শহীদ

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...