লক্ষ্য এবার টেস্ট সিরিজ জয়

0

ওয়ানডেতে বাংলাদেশ যতটা পরাক্রমশালী টেস্টে ঠিক ততটায় বিবর্ণ। যেন পোশাকের রং বদলের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যায় বাংলাদেশের পারফরমেন্স। তবে টেস্ট যখন দেশের মাটিতে আর প্রতিপক্ষ যখন খর্ব শক্তির জিম্বাবুয়ে, তখন ভালো কিছুর আশা করাই যায়। সেই ভালো কিছু যে অবশ্যই সিরিজ জয় তা বলেছেন বাংলাদেশ দল সংশ্লিষ্ট সবাই।

শনিবার (৩ নভেম্বর) সকাল সাড়ে নয়টায় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের প্রথম টেস্ট। এই ম্যাচ দিয়ে দেশের অষ্টম টেস্ট ভেন্যু হিসেবে যাত্রা শুরু হবে সিলেটের এই নয়নাভিরাম স্টেডিয়ামের। ‘ঘণ্টা বাজিয়ে’ যার আনুষ্ঠানিকতা সারবেন ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাদুগালে।

টেস্টে মুখোমুখি পরিসংখ্যানে জিম্বাবুয়ে এগিয়ে থাকলেও বাংলাদেশকে হারাতে পারেনি সবশেষ চার ম্যাচে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৪ টেস্টে বাংলাদেশের জয় ৫ ম্যাচে, জিম্বাবুয়ে জিতেছে ৬ ম্যাচে। ড্র হয়েছে বাকি ৩ ম্যাচ। সাকিব-তামিমবিহীন বাংলাদেশের সামনে সুযোগ এখন জিম্বাবুয়েকে টপকে যাওয়ার। আর সেই লক্ষ্যে সিলেটে জোর অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল।

অনুশীলন শেষে শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ জানান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে চোখ রেখে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবেন তারা। “ওয়েস্ট ইন্ডিজে সর্বশেষ (টেস্টে) সিরিজে আমরা আশানুরূপ খেলতে পারিনি। আমরা সেখানে ভালো করতে পারিনি। আমাদের এখানে অনেক সুযোগ আছে উন্নতি করার। সামনে ওদের বিপক্ষে দেশের মাটিতে আমাদের একটা সিরিজ আছে। আমার মনে হয়, তার আগে এই দুই ম্যাচ আমাদের জন্য ভালো একটা সুযোগ।”

“আমরা যদি আমাদের স্কিল কাজে লাগিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে একটা ভালো ফল আনতে পারি তাহলে ওই আত্মবিশ্বাস আমরা দ্বিতীয় টেস্টে নিয়ে যেতে পারবো। যদি বড় লক্ষ্যের কথা চিন্তা করি, সামনের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ আমাদের মূল লক্ষ্য থাকবে।”

ঠাণ্ডা মাথার খেলোয়াড় হিসেবে বাংলাদেশে সর্বজনস্বীকৃত মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলে খেলেন যে পজিশনে সেই জায়গায় দায়িত্ব নিয়ে কখনো ম্যাচ শেষ করতে হয় আবার কখনো উদ্ধারকর্মীর মতো বুকচিতিয়ে লড়তে হয়। সাকিবের অনুপস্থিতিতে আবারও দলকে নেতৃত্ব দেবেন রিয়াদ।

এবিষয়ে তিনি বলেন, “অধিনায়কত্ব সব সময় আমাকে ভালোভাবে নাড়া দেয়। দায়িত্বটা আমি সবসময় উপভোগ করার চেষ্টা করি। কয়েক বছর ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করছি। দলের সবাই কমবেশি সাহায্য করে। এখন আমি ভালো খেলার অপেক্ষায় আছি।”

রিয়াদ যোগ করেন, “এটা বলতে পারি যে, দায়িত্ব আমার খেলায় বড় প্রভাব ফেলে। আমাকে সেই চ্যালেঞ্জ দেয় যেন নিজের সেরাটা দলের জন্য দিতে পারি। অবশ্য আগে খেলোয়াড় হিসেবে চিন্তা করতে হবে যে দলকে কিভাবে সার্ভিস দিচ্ছি। এটাও চিন্তা করি। পাশাপাশি দায়িত্বটা উপভোগ করি এবং চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে পছন্দ করি। আমার মনে হয় এটা আমার খেলায়ও সাহায্য করে।”

স্টেডিয়ামের অভিষেক উপলক্ষে সিলেট জুড়ে এখন উৎসবের আমেজ। বাংলাদেশের জয়ে সেই অভিষেককে রাঙাতে সিলেটের ক্রিকেটপ্রেমীর সাথে টিভি পর্দায় চোখ থাকবে লাখো বাঙালির।

জয়নিউজ/পার্থ/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...