কায়সার-বাবু-মান্নান-দানু আমাদের প্রেরণার শক্তি : মেয়র

0

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, আতাউর রহমান খান কায়সার, আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু, এম এ মান্নান ও কাজী ইনামুল হক দানু আমাদের প্রেরণার শক্তি। আসন্ন নির্বাচনে কঠিন চ্যালেঞ্জে উর্ত্তীণ হতে এই চারজনের শুদ্ধতম জীবন ধারা থেকে শক্তি সঞ্চয় করতে হবে।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) নগরের জেলা শিশু একাডেমী মিলনায়তনে প্রয়াত চার রাজনীতিক আতাউর রহমান খান কায়সার-আখতারুজ্জামান বাবু-এম এ মান্নান-ইনামুল হক দানু’র স্মরণে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত স্মরণানুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, চট্টগ্রামে আওয়ামী রাজনৈতিক ঘরানার অনেক ক্ষণজন্মা পুরুষ জন্মগ্রহণ করেছেন। তাঁরা শুধু চট্টগ্রামেই নই, জাতীয় পর্যায়ের নেতা হিসেবে দেশ ও দলের জন্য স্মরণীয় অবদান রেখে গেছেন। এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আতাউর রহমান খাঁন কায়সার, আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু, এম এ মান্নান ও কাজী ইনামুল হক দানু। এরা মৃত্যুর পরও মুছে যাননি। নিজেদের কর্মে-কীর্তিতে তারা অমরত্ব লাভ করেছেন।

মেয়র বলেন, প্রয়াত এ চার নেতার আলাদা আলাদা বিশেষত্ব ছিল। তাদের কর্মময় জীবন ছিল দেশ-জাতি ও দলের জন্য নিবেদিত। কোন লোভ-লালসার কাছে তাঁরা কখনো আত্মসমর্পণ করেননি। দুঃসময়ে এরা ছিলেন দলের সাহসী কাণ্ডারী। নির্যাতন-নিপীড়নেও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি তারা আনুগত্য অব্যাহত রেখেছিলেন। কায়সার ভাই, মান্নান ভাই ও দানু ভাই ছিল সৃজনশীল লেখক এবং বাবু ভাই ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি ব্যাংকের উদ্যোক্তা। রাজনীতির বাইরেও এরা নিজেদের আপন কীর্তিতে সমুজ্জ্বল ছিলেন। তিনি এই প্রয়াত চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, আওয়ামী লীগ জন্মের পর থেকেই সবসময় কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছে। সামনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আমরা কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হবো।

মুখ্য আলোচকের বক্তব্যে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, আমার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় এঁদের ছায়ায়। এই চার প্রয়াত নেতা আমার রাজনৈতিক শিক্ষাগুরু। তাঁদের সত্ত্বা ও অস্তিত্বকে আমি সবসময় অনুভব করি। এ চার প্রয়াত নেতা ছিলেন সৃজনশীল রাজনৈতিক কর্মী সৃষ্টির কারিগর।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা উপ-কমিটির আহ্বায়ক চসিক কাউন্সিলর এইচ এম সোহেলের সভাপতিত্বে ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় স্মরণানুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন স্মরণানুষ্ঠান উপ পরিষদের যুগ্ম সদস্য সচিব সাবেক ছাত্রনেতা এম এ মান্নান শিমুল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্মরণানুষ্ঠানের সদস্য সচিব অলিদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফর আলী, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য শেখ মাহমুদ ইসহাক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র অধ্যাপক ড. নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, নগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য প্রকৌশলী বিজয় কুমার চৌধুরী কিষান, হাজী বেলাল আহমদ, কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য ফারুক আহমেদ, পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন কাজী ইনামুল হক দানু’র ছেলে কাজী রাজেশ ইমরান, নগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, আবুল বশর, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শামসুদ্দিন মানিক, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহসভাপতি হারুনুর রশিদ, সহসম্পাদক রোকন উদ্দিন চৌধুরী, ছাত্রনেতা গোপাল দাশ টিপু, ২৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা ইফতিয়াজ আইয়াজ, চান্দগাঁও ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা মো. রাসেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মো. আলমগীর, মো. জাবেদ, ছাত্রলীগ নেতা আনিসুর রহমান, শিমুল বড়ুয়া। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য আবদুল মান্নান ফেরদৌস, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবদুর রশিদ লোকমান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক রাশেদুল আরেফিন জিসান, নগর ছাত্রলীগ নেতা জালাল উদ্দিন রানা, ইফতিয়াজ সাঈদ সর্দ্দার, সংস্কৃতিকর্মী কবি সজল দাশ, রতন ভট্টাচার্য, পলাশ কুমার দেব, মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

জয়নিউজ/কাউছার/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...