চন্দ্রঘোনায় জমে উঠেছে মাদক ব্যবসা

0

কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবারও কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনায় মাদক ব্যবসা জমে উঠেছে। পালিয়ে থাকা মাদক বিক্রেতারা পুনরায় জড়ো হচ্ছে এলাকায়। এতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা করছে সচেতন মহল।

জানা গেছে, চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের ছাদেকের ঘোনা, ফকিরা ঘোনা, কাবিলা ঘোনা এলাকায় মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুটি গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এনিয়ে বছর দুয়েক পূর্বে প্রতিপক্ষের হামলায় মো. শাহদাৎ হোসেন নামের এক মাদক ব্যবসায়ী গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় শাহদাৎসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা প্রতিশোধ নিতে মরীয়া হয়ে ওঠে। এক বছর পূর্বে তারা অপর পক্ষের প্রধান নূর ইসলামকে কুপিয়ে জখম করে। কয়েক মাস আগে নূর ইসলামের বিশ্বস্ত সহচর মো. ইব্রাহীম খলিলকে রেশম বাগান এলাকায় গলা কেটে হত্যা করে।

এ ব্যাপারে মামলা হলে শাহদাৎ ও তার দলের লোকজন গা ঢাকা দেয়। সম্প্রতি খলিল হত্যার সাথে জড়িত দু’ আসামিকে আটক করে পুলিশ।

সম্প্রতি সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানের মুখে মাদক বিক্রেতারা কিছুদিনের জন্য গা ঢাকা দেয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসলে মাদক বিক্রেতারা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। শাহদাৎ গ্রুপের লোকজনের পালিয়ে থাকার সুযোগে নূর ইসলাম গ্রুপের লোকজন পুনরায় মাদকের বিকিকিনি শুরু করে। এলাকার উঠতি বয়সের যুবক-কিশোরদের মাদক বিক্রির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এরা ফকিরা ঘোনা ও ছাদেকের ঘোনার নির্দিষ্ট স্থানে অবস্থান নেয়। আর মোবাইল ফোনে যোগাযোগের মাধ্যমে খদ্দেরদের মাদক সরবরাহ করছে। এতে এলাকায় আইন- শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে কাপ্তাই থানার ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ নূর বলেন, মাদকের বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স অবস্থানে আছি। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় নেই। ইতোমধ্যে আমরা বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রেতাসহ বেশ কয়েকজন মাদকসেবীকে আটক করেছি। অভিযান অব্যাহত আছে।

জয়নিউজ/ লাভলু/আরসি
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...