সাতকানিয়ায় বলাৎকারের পর শিশুকে গলা টিপে হত্যা

0

সাতকানিয়ায় এক শিশুকে বলাৎকারের পর গলা টিপে হত্যা করেছে মো. শাকিল (২৩) নামে এলাকার এক বখাটে যুবক। হত্যার পর লাশ মাটিচাপা দিয়ে লুকিয়ে রাখে শাকিল। পরে এলাকাবাসী শিশুটির লাশ উদ্ধার করে হত্যাকারীকে থানায় সোপর্দ করে।

শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার মাদার্শা বটতলী আনিকার ঝিরি পাহাড় এলাকায় নিহত শিশুর নাম তৌহিদুল ইসলাম সায়েম (৯)। সে মাদার্শা ৩নং আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার শাকের আলীর ছেলে।

স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় একই এলাকার মো. ইউনুচ মিয়ার ছেলে শাকিল পাহাড়ে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে সায়েমকে পাহাড়ি এলাকায় নিয়ে বলাৎকার করে। বিষয়টি সায়েম সবাইকে বলে দেওয়ার কথা বললে শাকিল তাকে দু’হাত বেঁধে গলা টিপে হত্যা করে পাহাড়ে মাটিচাপা দিয়ে চলে আসে। ওই দিন সন্ধ্যা পর্যন্ত সায়েম বাড়ি না ফিরলে পরিবারের সদস্যসহ এলাকার লোকজন শাকিলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় শাকিলের কথাবার্তায় অসঙ্গতি দেখে এলাকাবাসী তাকে আটক করে এবং মারধর করলে বলাৎকার করে হত্যার বিষয়টি সে স্বীকার করে। পরে তার স্বীকারোক্তিমতে স্থানীয়রা আনিকার ঝিরি এলাকা থেকে সায়েমের লাশ উদ্ধার করে।

শনিবার (৮ ডিসেম্বর) সকালে পুলিশ সায়েমের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। ঘটনার সাথে জড়িত মো. শাকিলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে নিহত তৌহিদুল ইসলাম সায়েমের পিতা শাকের আলী বাদী হয়ে সাতকানিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে মাদার্শা ইউপি সদস্য আবুল হোসেন মনু জয়নিউজকে বলেন, সন্ধ্যা পর্যন্ত সায়েমকে খুঁজে না পাওয়ায় এলাকাবাসী সকালে শাকিলের সঙ্গে ঘোরাঘুরির বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে আমরা শাকিলকে জিজ্ঞাসা করি। একপর্যায়ে সায়েমকে হত্যার করার কথা জানতে পারি।

জয়নিউজ/মাহফুজ/বিশু/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...