জনগণকে নির্বাচনের বাইরে রেখে ক্ষমতায় যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে: খসরু

0

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, জনগণকে নির্বাচনের বাইরে রেখে ক্ষমতায় যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডসহ আমাদের যে ৭ দফা দাবি ছিল তা মানা হয়নি। নির্বাচনি পরিবেশ নিয়েও পুরো জাতি সন্দিহান। জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে গণতন্ত্র যেন পুনরুদ্ধার হয় সেজন্য আমরা নির্বাচনে এসেছি।

সোমবার (১০ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে নগর বিএনপি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব বলেন।

খসরু আরো বলেন, আমরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছি মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, জীবনের নিরাপত্তা বিধান, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে। আর নির্বাচনে এসে আমরা দেখছি সবকটি সূচকে আরো অবনতি ঘটেছে। এখন এক ভয়াবহ অবস্থার মুখোমুখি আমরা। প্রতিটি এলাকায় প্রতিনিয়ত, রাত-দিনে অভিযান চলছে, গ্রেফতার চলছে। ভয়ভীতির পরিবেশ সৃষ্টি করা হচ্ছে। ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করতে চাচ্ছে। আমরা একটি বাধা অতিক্রম করলে আরো তিনটি বাধা সামনে চলে আসছে। জনগণকে নির্বাচনের বাইরে রেখে ক্ষমতায় যাওয়া প্রক্রিয়া চলছে।

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টির জন্য অভিযান, গ্রেফতার চলছে। আমরা গণমাধ্যমের সহযোগিতা চাই এই পরিবেশ বন্ধে। গণমাধ্যম তুলে ধরতে পারে প্রশাসন যা করছে তা সঠিক নয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাজ হচ্ছে জনগণকে সুরক্ষা দেওয়া। সংবিধানে সুস্পষ্ট উল্লেখ আছে নাগরিকদের সুরক্ষা দেয়া প্রশাসনের দায়িত্ব।

তিনি আরো বলেন, ১১ ডিসেম্বর থেকে নির্বাচনি প্রচারণা শুরু হওয়ার কথা। অথচ আমি এই প্রোগ্রামে আসার পথে একাধিক প্রচারণামূলক ব্যানার দেখে এলাম। সরকারি দল নির্বাচনি আইন মানছে না। তারা প্রস্তুতি সভা, কর্মী সভা করছে। প্রশাসনও তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে কোন কর্মসূচি পালন করছি না। আমরা আগামীকাল থেকে প্রচারণা শুরু করবো। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস মেনে নেবো না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে পুরোপুরি সহায়তা করবো। যাতে একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পন্ন হয়। প্রশাসনকে জনগণের পক্ষে দাঁড়াতে হবে। জনগণের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে কোন গোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষা করলে তা সংবিধান পরিপন্থি হবে।

খসরু আরো বলেন, আমরা কাল থেকে গণসংযোগ করবো। ক্যাম্পেইন করবো। যাতে কোন ধরনের বাধা সৃষ্টি না হয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আচরণ আমরা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করবো। তারা তাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করছে কিনা তা জনগণ পর্যবেক্ষণ করবে। জনগণ তাদের দায়িত্ব পালন সহযোগিতা করবে। জনগণের বিপক্ষে গিয়ে কোন শক্তি স্থায়ী হয়নি অতীতে। তাই আমি আহ্বান করবো, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের প্রতি আমাদের সহযোগিতার হাত প্রসারিত থাকবে। আসুন একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে একটি নির্বাচিত সরকার প্রতিষ্ঠা করি।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ২০ দলীয় জোটের মুখপাত্র কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ বীরবিক্রম, বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, নগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু সুফিয়ান, দক্ষিণ জেলা বিএনপি সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, সহসভাপতি এনামুল হক এনাম, সারওয়ার জামাল নিজাম প্রমুখ।

জয়নিউজ/ফারুক/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...