ধর্ষিতা কিশোরী এখন ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা

0

বাঁশখালী গণ্ডামারা ইউনিয়নের দারুল হিকমা মহিলা মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী (১৩) ধর্ষণের বিচার চেয়ে পথে পথে ঘুরছে। একই ইউনিয়নের পূর্ব বড়ঘোনা গ্রামের দরিদ্র জেলে পরিবারের মেয়েটিকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দীর্ঘদিন স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যের ছেলে কামরুল ইসলাম প্রকাশ জোনায়েদ (২০) ধর্ষণ করে আসছিল। ধর্ষিতার মা বাদি হয়ে মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) বাঁশখালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ২০০০ (সংশোধিত/০৩) এর ৯ (১) ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।

ওই ছাত্রীর মা বলেন, প্রতিবেশী প্রভাবশালী ইউপি সদস্যের ছেলে জোনায়েদ আমার মেয়েকে বিয়ের প্রলোভনে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করেছে। আলট্রাসনোগ্রাফিতে সে এখন ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা গেছে। কয়েকদফা সালিশি বৈঠকের পরও বিষয়টির সুরাহা না হওয়ায় থানায় মামলা করেছি। মামলা দায়েরের পর থেকে প্রকাশ্যে ধর্ষক ঘুরছে। মামলা উঠিয়ে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে।

গণ্ডামারা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. আলী হায়দার চৌধুরী আসিফ বলেন, অন্তঃসত্ত্বা মেয়েটি খুব দরিদ্র পরিবারের। অপরদিকে ধর্ষক প্রভাবশালী। এ কারণে ভিকটিমের পরিবার অসহায় হয়ে পড়েছে। ধর্ষক প্রকাশ্যে ঘুরছে।

দারুল হিকমা মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আজিজুল হক বলেন, নির্যাতিতা আমাদের স্কুলের ছাত্রী। আমি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. কামাল হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। ধর্ষককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জয়নিউজ/উজ্জ্বল/আরসি

সরাসরি আপনার ডিভাইসে নিউজ আপডেট পান, এখনই সাবস্ক্রাইব করুন।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...