সীতাকুণ্ডে বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার

0

সীতাকুণ্ডে বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি থেকে পেট্টোল বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ একটি দেশে তৈরি পাইপগান উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনাটি পুলিশের সাজানো নাটক বলে দাবি করেছেন বিএনপির প্রার্থী। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টায় উপজেলার ভাটিয়ারী ইউনিয়নের জলিল গেইট এলাকায় এ অস্ত্র-বোমা উদ্ধার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিএনপি প্রার্থী ইসহাক কাদের চৌধুরী বুধবার দুপুরে তাঁর জলিল গেইটের নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনের আগে এলাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী, পুলিশ ও বিজিবি অবস্থান নেয়। দুপুর একটায় সংবাদ সম্মেলন চলাকালে জানা যায়, জলিল গেইট এলাকায় ইসহাক কাদের চৌধুরীর নির্বাচনি কাজে ব্যবহৃত প্রাডো জিপটি (চট্টমেট্টো-ঘ-১১-১১৫৩) স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন।

পুলিশ গাড়িটিতে তল্লাশি চালিয়ে চার রাউন্ড কার্তুজসহ একটি দেশে তৈরি পাইপগান ও ১৯টি কাঁচের বোতলসহ পেট্টোল বোমা বানানোর সরঞ্জাম উদ্ধার করে। এসময় প্রাডো জিপের চালক মেহেদী হাসান তারেককেও আটক করা হয়।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাব্বারুল ইসলাম জয়নিউজকে বলেন, বুধবার দুপুরে বিএনপির প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। সংঘর্ষের আশঙ্কায় পুলিশ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ওই এলাকায় অবস্থান নেয়।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলওয়ার হোসেন বলেন, পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ইসহাক চৌধুরীর গাড়িতে তল্লাশি চালায়। এসময় গাড়ি থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এছাড়া আটক করা হয়েছে গাড়িচালক মেহেদী হাসান তারেককেও। এ ঘটনায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিএনপির প্রার্থী ইসহাক কাদের চৌধুরী বলেন, পূর্বনির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনের কথা থাকলেও পুলিশ পুরো এলাকা ঘেরাও করে রাখে। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা এলাকায় প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দিচ্ছে। পুলিশ তাদেরকে নিয়েই বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে। হামলা করে ও মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের এলাকা ছাড়া করা হচ্ছে।

গাড়িতে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনা সাজানো দাবি করে তিনি বলেন, নির্বাচনি কাজে ব্যবহৃত প্রাডো জিপটি নিয়ে চালক তারেক সংবাদ সম্মেলনে আসা সাংবাদিকদের নাস্তার জন্য স্থানীয় জলিল গেইটের একটি দোকানে গিয়েছিল। সেখানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাকে নামিয়ে জিপটি নিয়ে যায়। পরবর্তীতে তারা ও পুলিশ মিলে গাড়িতে অস্ত্র রেখে নাটক সাজায়। ওখানে পেট্টোল বোমা বা অস্ত্র থাকার প্রশ্নই আসে না।

ভাটিয়ারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন বলেন, পুলিশ গোপন সংবাদ পেয়ে গাড়িটিতে তল্লাশি চালিয়ে অস্ত্র ও পেট্টোল বোমার সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে। এখানে আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মী জড়িত থাকার প্রশ্নই আসে না।

জয়নিউজ/সেকান্দর/বিশু/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...