ঝাঁজ বেড়েছে পেঁয়াজ রসুন আদার

0

সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে সবজি ও মাছের দাম। আশাতীত কমেছে ইলিশের দাম। এক লাফে ইলিশ সাতশত টাকা কমে এক হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে কোরবানির আগেই ঝাঁজ বেড়েছে আদা, পেঁয়াজ, রসুনে।

নগরের কাজির দেউড়ি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, শসা বিক্রি হচ্ছে ত্রিশ টাকায়, চিচিঙ্গা দশ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে পঞ্চাশ টাকায়, পটল কেজিতে দশ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে চল্লিশ টাকায়, লাউ দশ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ত্রিশ টাকায়। এছাড়া পেঁপে পাঁচ টাকা কমে ত্রিশ টাকায়, ঢেড়শ দশ টাকা কমে চল্লিশ টাকায়, তিত করলা দশ টাকা কমে পঞ্চাশ টাকায়, বরবটি দশ টাকা কমে সত্তর টাকায়, টমেটো কেজিতে দশ টাকা কমে সত্তর টাকায়, কাকরোল দশ টাকা কমে ষাট টাকায়। বেড়েছে বেগুনের দাম। বেগুনের দাম দশ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে পঞ্চাশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। স্বাভাবিক রয়েছে আলুর দাম। বিক্রি হচ্ছে পঁচিশ টাকায়। কাঁচা মরিচের দাম বিশ টাকা বেড়ে  বিক্রি হচ্ছে একশ’ বিশ টাকা কেজিতে ।

সবজি বিক্রেতা মোহাম্মদ দিদার জানান, এই সপ্তাহে সবজির সরবরাহ ভালো ছিলো এবং আবহাওয়া স্বাভাবিক  থাকায় আগের তুলনায় দাম কমেছে। এরকম সরবরাহ থাকলে সামনে আরো দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

অন্যদিকে, মাছ বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, কমেছে গুটিকয়েক মাছের দাম। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দাম স্থিতিশীল রয়েছে। চিংড়ি আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৫০০-৮০০ টাকায়। কেজিতে কমেছে পঞ্চাশ টাকা। তেলাপিয়া আকারভেদে বিশ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৮০ টাকায়, লইট্টা পঞ্চাশ টাকা কমে ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, ইলিশ (বড় সাইজের) সাতশত টাকা কমে ১৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি সাইজের ইলিশ একশ’ টাকা কমে আটশ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অপরিবর্তিত রয়েছে কোরাল মাছের দাম। আকারভেদে কোরাল ৬০০-৬৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, রূপচাঁদা (বড়) নয়শ’ টাকা থেকে কমে আটশ’ টাকায় এবং (ছোট) আটশ’ পঞ্চাশ টাকা থেকে কমে সাতশ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বড় সাইজের মাগুর মাছ চারশ’ টাকা বেড়ে এক হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছোট সাইজের মাগুর বিক্রি হচ্ছে ৭শ’ টাকায়। এছাড়া কাতলা (বড়) ৩৮০ টাকা এবং (ছোট) ৩০০ টাকায়, শিং মাছ (বড়) ১০০০-৮০০ টাকা এবং (ছোট) ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাছ বিক্রেতা কামাল হোসেন বলেন, আগে সরবরাহ কম থাকার কারণে দাম বেশি ছিলো। এখন সরবরাহ রয়েছে, তাই দাম কমেছে।

ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে দশ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকায় । দেশি মুরগি কেজিতে বিশ টাকা কমে এখন বিক্রি হচ্ছে ৩৮০ টাকায়। তবে অপরিবর্তিত রয়েছে ছাগলের মাংসের দাম। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০০ টাকায়। পরিবর্তন হয়নি গরুর মাংসের দাম। কেজিতে বিক্রি হচ্ছে (হাড়ছাড়া) ৬০০ টাকা এবং (হাড়সহ) ৫০০ টাকায়।

মুদির দোকান ঘুরে দেখা গেছে, পেঁয়াজ, রসুন ও আদার দাম বেড়েছে। পেঁয়াজ গত সপ্তাহের তুলনায় দশ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে চল্লিশ টাকায়, রসুন দশ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে সত্তর টাকায়, আদা বিশ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে একশ’ ১০ টাকায়। কমেছে ডিমের দাম। হাঁসের ডিম দশ টাকা কমে একশত ১০ টাকায় এবং মুরগির ডিম বিশ টাকা কমে নব্বই টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...