ভারত বেড়ানো আরো সহজ

0

বছরের শুরুতেই বাংলাদেশকে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ গিফট দিলো ভারত। ঢাকাস্থ ভারতীয় দূতাবাস থেকে ভিসাপ্রত্যাশী বাঙালিদের জন্য এলো সুখবর। বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী আরো সুদৃঢ় করতে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নতুন করে চালু হচ্ছে ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র। ফলে সহজ হচ্ছে বাংলাদেশিদের ভারত যাত্রা। বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সাম্প্রতিককালে স্বল্পখরচে বহুবিচিত্র দেশ প্রতিবেশী ভারতে বেড়াতে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। চিকিৎসা ও শপিংয়ের জন্যও বাঙালি এখন ভারত নির্ভর।

ভারতীয় হাই কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৬ জানুয়ারি থেকে ঠাকুরগাঁও ও বগুড়ায় এবং ১২ জানুয়ারি থেকে কুমিল্লা, নোয়াখালী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও সাতক্ষীরায় ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলো চালু হতে যাচ্ছে।

বুধবার (২ জানুয়ারি) ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন অংশে নয়টি ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্র চালু রয়েছে।  নতুন করে ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্রসহ এই সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫টিতে। প্রান্তিক ও দূরবর্তী এলাকাগুলোতে বসবাসকারী বাংলাদেশি নাগরিকদের ভারতীয় ভিসা চাহিদা পূরণ ও ভিসাপ্রাপ্তি সহজতর করার লক্ষ্যে এই ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র চালু করা হচ্ছে।

ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কের সহযোগিতায় ভারতীয় হাই কমিশনের দীর্ঘ প্রচেষ্টারই  প্রতিফলন নতুন এই ভিসাকেন্দ্রগুলো। জানা গেছে, বিদেশগামী রোগীদের ৮০ শতাংশই যান ভারতে। অন্যরা যান, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশে। তাদের মধ্যে অনেকেই ভ্রমণ ভিসা নিয়ে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যান।

এদিকে সম্প্রতি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে প্রকাশ, বিদেশিদের আকৃষ্ট করতে ভিসা প্রক্রিয়া আরও সহজ করার কথা ভাবছে ভারত সরকার। এ লক্ষ্যে ই-ভিসার সংখ্যা বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দিন দিন ই-ভিসা জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। ২০১৫ সালে পাঁচ লাখ ১৭ হাজার ই-ভিসা ইস্যু করা হয়েছিল।  আর ২০১৭ সালে সেই পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ১৯ লাখ একশতে। ২০১৮ সালের জুলাই পর্যন্ত ১১ লাখ ১৬ হাজার ই-ভিসা ইস্যু করা হয়।  ভারতের কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে মোট দুই লাখ ২১ হাজার ৭৫১ জন বাংলাদেশি চিকিৎসার কারণে ভারতে এসেছিলেন।

গত বছর বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে উঠে আসে- ভারতে প্রতি বছর যে লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশী পর্যটক আসছেন ও যাদের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে, তারা ভারতে এসে ঠিক কীরকম টাকাপয়সা খরচ করেন? ভারতের পর্যটনমন্ত্রীর মতে, পশ্চিমা পর্যটকদের চেয়ে বাংলাদেশীদের খরচ করার পরিমাণ কিন্তু কোনও অংশে কম নয়। ঢাকার ভারতীয় দূতাবাস থেকেই এখন বিশ্বের যে কোনও ভারতীয় মিশনের চেয়ে বেশি ভিসা মঞ্জুর হয় – আর প্রতি বছরই অন্তত ১৬ থেকে ১৭ লক্ষ বাংলাদেশী এখন ভারতে আসছেন।

এশিয়ার সর্ববৃহৎ শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক এখন বিশ্বের বৃহত্তম ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র। সাড়ে ১৮ হাজার বর্গফুট আয়তনের এ কেন্দ্রটিতে ৭০০ জনের মতো বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...