কিংসদের হারিয়ে ডায়নামাইটসের শুরু

0

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের দ্বিতীয় ম্যাচে রাজশাহী কিংসদের ৮৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করেছে সাকিব-নারাইন-রাসেল-পোলার্ড-রুবেলের ঢাকা ডায়নামাইটস।

এদিন টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কিংস দলপতি মিরাজ। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ডায়নামাইটস তোলে ১৮৯ রান। জবাবে, ব্যাটিংয়ে নেমে ১৮.২ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে কিংসরা তোলে ১০৬ রান।

ডায়নামাইটসের হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন ক্যারিবীয়ান তারকা সুনীল নারাইন এবং আফগানিস্তানের হজরতউল্লাহ জাজাই। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে তারা তুলে নেন ৬৮ রান। আর ৯ ওভারে তুলে নেন দলীয় ১০০। ২২ বলে ফিফটি করেন জাজাই। ১০.৪ ওভারে এই ওপেনিং জুটিতে আসে ১১৬ রান। বিদায় নেন নারাইন। মোহাম্মদ হাফিজের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ধরা পড়ার আগে নারাইন ২৮ বলে চারটি চার আর দুটি ছক্কায় করেন ৩৮ রান।

১২তম ওভারে মেহেদি হাসান মিরাজের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ধরা পড়ার আগে আফগান তারকা জাজাই করেন ৭৮ রান। ৪১ বলে সাজানো তার ইনিংসে ছিল চারটি চার আর সাতটি ছক্কার মার। নারাইনের বিদায়ে নামেন আরেক ক্যারিবীয়ান কাইরন পোলার্ড আর জাজাইয়ের বিদায়ে ব্যাট হাতে নামেন ডায়নামাইটস দলপতি সাকিব আল হাসান। ইনিংসের ১৪তম ওভারে আরাফাত সানি ফিরিয়ে দেন ৭ বলে ২ রান করা সাকিবকে।

ডায়নামাইটস দলপতির বিদায়ে আসেন আরেক ক্যারিবীয়ান অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল। ১৫তম ওভারে কায়েস আহমেদের বলে বিদায় নেন পোলার্ড (৩)। এরপরের ওভারে নতুন ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানকে (১) ফিরিয়ে দেন আরাফাত সানি। নতুন জুটি গড়েন আন্দ্রে রাসেল আর শুভাগত হোম। এই জুটিতে আসে অবিচ্ছিন্ন ৫৩ রান (২৮ বলে)। রাসেল ১৯ বলে দুটি চার আর একটি ছক্কায় ২১ রানে অপরাজিত থাকেন। আর শুভাগত হোম ৫টি চার আর দুটি ছক্কায় ৩৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ২৭ রান খরচ করে উইকেটশূন্য থাকেন। ৪ ওভারে ২৯ রান দিয়ে একটি উইকেট পান কায়েস আহমেদ। মোহাম্মদ হাফিজ ৩ ওভারে ১৫ রান খরচায় তুলে নেন একটি উইকেট। আরাফাত সানি ৩ ওভারে ২৩ রান দিয়ে নেন দুটি উইকেট। মেহেদি মিরাজ ৩ ওভারে ৩৮ রান দিয়ে তুলে নেন একটি উইকেট। আলাউদ্দিন বাবু ৩ ওভারে ৫৩ রান খরচায় কোনো উইকেট পাননি।

১৯০ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে গতবারের রানার্সআপ ঢাকার বিপক্ষে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে কিংসরা। দলীয় ২৪ রানের মাথায় বিদায় নেন ওপেনার মুমিনুল হক (৮)। ২৯ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন সৌম্য সরকার (৪)। ৪৭ রানের মাথায় বিদায় নেন লউরি ইভান্স (১০)। ৫৬ রানের মাথায় বিদায় নেন জাকির হাসান (২)। দলীয় একই রানে ফেরেন আরেক ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজ। তার আগে পাকিস্তানি এই ওপেনার ২৮ বলে চারটি বাউন্ডারিতে করেন ২৯ রান। একই ওভারে রুবেল হোসেন ফিরিয়ে দেন হাফিজ এবং জাকিরকে।

দলীয় ৫৯ রানের মাথায় বিদায় নেন রাজশাহীর আরেক বিদেশি ক্রিস্টিয়ান জোঙ্কার। মোহর শেখের বলে জাজাইয়ের তালুবন্দি হয়ে ফেরার আগে তিনি ১ রান করেন। নিজের পরের ওভারে রুবেল ফিরিয়ে দেন কিংস দলপতি মেহেদি হাসান মিরাজকে (১)। রুবেল তার করা প্রথম ৩ ওভারে ৭ রানের বিনিময়ে তুলে নেন তিনটি উইকেট। ১৩তম ওভারে বোলিংয়ে এসে কাইরন পোলার্ড ফিরিয়ে দেন ৬ বলে ৯ রান করা কায়েস আহমেদকে। ১৩ ওভারে দলীয় ৭৬ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে বসে রাজশাহী।

দলীয় ৮০ রানের মাথায় মোহর শেখ বিদায় করেন ৭ রান করা আলাউদ্দিন বাবুকে। শেষ উইকেটে জুটি গড়েন আরাফাত সানি এবং মোস্তাফিজুর রহমান। এই জুটিতে আসে ২৬ রান। ইনিংসের ১৯তম ওভারে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন ১৮ বলে ১৮ রান করা আরাফাত সানি। আর ১৩ বলে ১১ রান করে অপরাজিত থাকেন মোস্তাফিজ।

রুবেল তিনটি, মোহর শেখ দুটি, সাকিব একটি আর পোলার্ড একটি, শুভাগত হোম একটি করে উইকেট তুলে নেন। নারাইন কোনো উইকেট পাননি।

জয়নিউজ/শহীদ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...