৪ ঘণ্টায়ও নেভেনি এ কে খানের আগুন

0

চার ঘন্টা অতিবাহিত হলেও এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি নগরের এ কে খান মোড় এলাকার প্লাস্টিক কোম্পানি আরএফএলসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৮টি গুদামে লাগা আগুন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বলছেন, প্লাস্টিক, দাহ্য পদার্থ ও তুলা থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে বেগ পেতে হচ্ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসায় ফায়ার সার্ভিসের আগের ১৫টি গাড়ির সঙ্গে আরো ২টি গাড়ি যোগ হয়েছে। তারপরও রাত সাড়ে ৯টার দিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

এর আগে শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) বিকাল পৌনে ৫টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আরএফএলের প্লাস্টিকের গুদামে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে আগুন পাশের গুদামগুলোতেও ছড়িয়ে পড়ে। ওই গুদামগুলোতে দাহ্য পদার্থ (কেমিক্যাল) ও তুলা থাকায় আগুনের তীব্রতা ক্রমেই বাড়তে থাকে। বাধ্য হয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলের পাশে থাকা একটি জলাশয় ও নালার পানি দিয়েও আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন।

রাত ৯টার দিকে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক মো. জসিম উদ্দীন জয়নিউজকে বলেন, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হচ্ছে। কারণ গুদামগুলোতে প্লাস্টিক, বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ ও তুলা রয়েছে। পরে ১৫টি গাড়ির সাথে আমরা আরো ২টি গাড়ি যোগ করেছি। আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আগুন নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

তিনি বলেন, আগুণের তীব্রতা দেখে মনে হচ্ছে ক্ষয়-ক্ষতি কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। তবে আগুন নিভলেই এ বিষয়ে সঠিক তথ্য দেওয়া যাবে।

জয়নিউজ/রুবেল/জুলফিকার

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...