মুকেশ আম্বানির আয় ভারতের স্বাস্থ্য বাজেটের চেয়ে বেশি!

0

ভারতের এক শতাংশ ধনীর হাতে অর্ধেক সম্পত্তি। শুধু মুকেশ আম্বানীর একার আয় থেকে ভারতের কেন্দ্র-রাজ্য মিলিয়ে চিকিৎসা, স্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতা খাতে বরাদ্দের চেয়ে কম!

এমনই সব চোখ কপালে তোলার মতো পরিসংখ্যান উঠে এসেছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অক্সফ্যামের সমীক্ষায়।

সমীক্ষা বলছে, ধনীরা আরও ধনী হচ্ছেন। হাল ফিরছে না গরিবের। বরং আরও শোচনীয় হচ্ছে তাঁদের আর্থিক অবস্থা। ভারতে যে বিপুল আর্থিক বৈষম্য তার প্রমাণ উঠে এসেছে এই রিপোর্টে।

দেশের ১ শতাংশ ধনী ব্যক্তির হাতেই রয়েছে ৫১.৫৩ শতাংশ জাতীয় সম্পদ। আবার১০ শতাংশ ধনীর হাতেই রয়েছে ভারতের মোট সম্পদের ৭৭.৪ শতাংশ।

সেখানে অর্থনীতির সূচকের নীচের দিকে থাকা ৬০ শতাংশ জনসংখ্যার হাতে রয়েছে মাত্র ৪.৮ শতাংশ জাতীয় সম্পদ। আবার দেশটির মাত্র ৯ জন ধনীর সম্পত্তির পরিমাণই দেশের ৫০ শতাংশ জনসংখ্যার মোট সম্পদের সমান।

অর্থনীতির এই বৈষম্য স্পষ্ট করে বোঝাতে ভারতের ক্ষেত্রে উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে মুকেশ আম্বানীকে। রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, কেন্দ্র ও রাজ্য মিলিয়ে চিকিৎসা, স্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতা খাতের মোট ব্যয় বরাদ্দ ২ কোটি ৮ লক্ষ ১৬৬ কোটি টাকা। সেখানে মুকেশ অম্বানীর সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ২ কোটি ৮০ লক্ষ কোটি টাকা। ২০১৮ সালে ভারতের কোটিপতিদের সম্পত্তি বেড়েছে ৩৯ শতাংশ। অন্য দিকে আয় সূচকের নিচের দিকে থাকা দেশের অর্ধেক জনসংখ্যার আয় বেড়েছে মাত্র ৩ শতাংশ।

আরও উল্লেখযোগ্য হল, যদি ভারতের এক শতাংশ ধনী ব্যক্তি তাঁদের সম্পত্তির উপর মাত্র ০.৫ শতাংশ অতিরিক্ত কর দেয়, তাহলে দেশের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য খাতে ব্যয় বরাদ্দ ৫০ শতাংশ বাড়ানো সম্ভব।

জয়নিউজ/পলাশ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...