পুরো নগর সিসিটিভির আওতায় আসবে: সিএমপি কমিশনার

0

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পু্লিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান বলেছেন, চট্টগ্রাম শহরের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যেখানে প্রয়োজন সেখানেই সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হবে। পুরো চট্টগ্রাম শহরকে সিসিটিভির আওতায় আনা হবে। এতে করে অপরাধ অনেক কমে যাবে।

সোমবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ সেবা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে পাঁচলাইশ থানায় স্থাপিত বুথ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

পাঁচলাইশ থানায় স্থাপিত বুথ পরিদর্শন শেষে কেক কাটছেন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান ।

সিএমপি কমিশনার আরো বলেন, নগরের মডেল থানাগুলোতে পুলিশ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে বিশেষ বুথের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে সাধারণ জনগণ বিভিন্ন সেবা নিতে পারবেন। শুধু পুলিশ সপ্তাহ নয়, আমরা চেষ্টা করছি সবসময়ই যেন মানুষ থানায় এসে এমন সেবা পান।

এর আগে সকাল ১১টায় প্রবর্তক মোড়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সংলগ্ন এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সিসিটিভি ক্যামেরার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সিএমপি কমিশনার।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, এ সরকার জনবান্ধব সরকার। জনগণের কোথায় কি প্রয়োজন সে অনুসারে সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। অপরাধ দমন ও অপরাধীদের শনাক্ত করতে সিসিটিভি কার্যকর ভূমিকা পালন করে। এজন্য আমরা পুরো চট্টগ্রাম শহরকে আস্তে আস্তে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসতে চাচ্ছি।

পাঁচলাইশ থানা পরিদর্শনে এলে সিএমপি কমিশনারকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া ।

চীনের উদাহরণ দিয়ে সিএমপি কমিশনার বলেন, পুরো চীনে ২২ মিলিয়ন সিসিটিভি ক্যামেরা আছে। আমরা চাই, পুরো বাংলাদেশ সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় চলে আসুক। তারই অংশ হিসেবে আজ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সংলগ্ন এলাকায় ১৬টি সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এসব ক্যামেরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ি থেকে মনিটরিং করা হবে। এতে হাসপাতাল এলাকায় যে কোনো অপরাধ দমন ও অপরাধীকে শনাক্ত করা অনেক সহজ হবে।

তিনি বলেন, মানুষের মধ্যে যেমন ভালো-খারাপ আছে, আমাদের পুলিশের মধ্যেও ভালো-খারাপ আছে। জনগণের সহায়তা নিয়ে খারাপ পুলিশ শনাক্ত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাই। থানাই হবে ভালো মানুষের আসার জায়গা। কোনো টাউট-দালালের স্থান থানায় হবে না।

পাঁচলাইশ থানা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের আহ্বায়ক শামছুল আলম শামীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক, পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাশেম ভূঁইয়া প্রমুখ।

বক্তব্য রাখেন বাগমনিরাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন, চকবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোরশেদ আলম, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা ও ৩২নং বিট কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি জসিমুল আনোয়ার খান।

জয়নিউজ/রুবেল/আরসি
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...