সীতাকুণ্ডে রাস্তায় ফেলে রাখা বোমা উদ্ধার

0

সীতাকুণ্ডে রাস্তায় ফেলে রাখা একটি বোমা উদ্ধার করে নিষ্ক্রিয় করেছে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজমের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট। বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় বোমাটি নিষ্ক্রিয় করা হয়।

বোমাটি নিষ্ক্রিয় করার সময় বিকট শব্দে পুরো এলাকা কেঁপে ওঠে। এদিকে বোমা রাখার খবরে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিমসহ সীতাকুণ্ড মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা এসময় ঘটনাস্থলে অবস্থান নেয়।

কী কারণে বা কারা ওইস্থানে বোমাটি রেখেছে গেছে তা জানাতে পারেননি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

তবে স্থানীয় কাউন্সিলর হারাধন চৌধুরী বাবু বলেন, স্থানীয়রা ধারণা করছে আগামী ৩ মার্চ থেকে ওই এলাকার চন্দ্রনাথ ধামে শিব চতুর্দশী মেলা শুরু হবে। সীতাকুণ্ডে হিন্দু সম্প্রদায়ের এটি সবচেয়ে বড় ধর্মীয় জমায়েত। ওই মেলাকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়াতে দুষ্কৃতিকারীরা বোমাটি রাস্তা ফেলে রেখে যেতে পারে বলে ধারণা তার।

জানা যায়, বুধবার সকালে সীতাকুণ্ড রেলস্টেশনের পূর্বে ভোলাগিরি সংযোগ সড়কের তাঁতী বাড়ির সামনে কাগজের প্যাকেটে একটি বোমা সদৃশ্য বস্তু দেখতে পান স্থানীয়রা। বিষয়টি জানানোর পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাটি ঘিরে ফেলে।

পরবর্তীতে চট্টগ্রাম থেকে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে বিকেল ২টার দিকে বোমাটি নিষ্ক্রিয় করেন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মসিউদ্দৌলা রেজা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীতাকুণ্ড সার্কেল শম্পা রাণী সাহা, পরিদর্শক (ওসি) মো. দেলওয়ার হোসেন, জাব্বারুল ইসলাম, সুমন বণিকসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজমের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের টিম প্রধান ইন্সপেক্টর রাজেশ বড়ুয়া বলেন, বোমাটি নিষ্ক্রিয় করার সময় বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হলেও তেমন কোন ক্ষয়-ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা ছিল না। তিনি আরও বলেন, বোমাটিতে যে সার্কিট ছিল তা যথাযথভাবে কাজ করেনি। তাই বোমাটি আগে বিস্ফোরিত হয়নি।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাব্বারুল ইসলাম জয়নিউজকে বলেন, সকাল ১০টার দিকে খবর পেয়ে আধঘন্টার মধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ ওই সড়কের মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণ কর। পরে বোমা নিষ্ক্রিয় করার পর সড়কটি চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়।

জয়নিউজ/সেকান্দর/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...