সীতাকুণ্ডে তিন বসতঘরে ডাকাতি, আহত ১

0

সীতাকুণ্ডে তিনটি বসতঘরে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাত দলের সদস্যরা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। এসময় ডাকাতদের হামলায় আহত হয়েছেন এক ব্যক্তি।

বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাত তিনটার দিকে উপজেলার বারৈয়ারঢালা ইউনিয়নের মির্জানগর গ্রামের (৬নং ওয়ার্ড উত্তর ফেদাইনগর) এমদাদ ভূঁইয়ার বাড়ির মোহাম্মদ নাছির, বদরুদ্দোজা ও মাস্টার তৌহিদের বসতঘরে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

ডাকাতের কবলে পড়া মোহাম্মদ নাছির জয়নিউজকে বলেন, বৃহস্পতিবার রাত তিনটার দিকে ১৮ থেকে ২০ জনের সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দল ভূঁইয়া বাড়ি ঘিরে ফেলে। ডাকাত দলের ৮-১০ সদস্য প্রথমে বদরুদ্দোজার বসতঘরের গ্রিল কেটে ঢুকে অস্ত্রের মুখে বদরুদ্দোজা ও তার স্ত্রী সাহানা আক্তারকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফেলে। এসময় তাদের ছেলে নাজমুল হোসেন (বর্তমানে পুলিশ কনস্টেবল) ডাকাতদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতরা তাকে ও তার স্ত্রী রেশমাকে একটি কক্ষে বেঁধে রাখে। এসময় তাদের ঘরে থাকা ভগ্নিপতি মোস্তফা ৯৯৯ নম্বরে কল করে পুলিশের সহযোগিতা চান। বিষয়টি ডাকাত দলের সদস্যদের চোখে পড়লে তারা তাকে কুপিয়ে জখম করে।

এরপর ডাকাত দলের সদস্যরা মুরাদপুর ক্যাপ্টেন শামশুল হুদা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক তৌহিদুল আনোয়ারের ঘরে একই কায়দায় ডাকাতি করতে ঢোকে। পরিবারের সদস্যদের এককক্ষে জিম্মি করে মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

নাছির আরও বলেন, তার বাড়িসহ তিন বাড়ি থেকে ১৭ ভরি গয়না, ৯টি মোবাইল সেট ও ৪০ হাজার নগদ টাকাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র নিয়ে যায় ডাকাত দল। আহত মোস্তফাকে সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় বারৈয়ারঢালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেহান উদ্দিন জয়নিউজকে বলেন, সম্প্রতি এ এলাকায় ডাকাতি বেড়ে গেছে। কয়েকদিন আগেও ডাকাতির ঘটনা ঘটেছিল। তার রেশ না কাটতেই ফেদাইনগর এমদাদ ভূঁইয়ার বাড়িতে গণডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাব্বারুল ইসলাম জয়নিউজকে বলেন, ডাকাতির ঘটনা সত্য। তবে তারা এখনো কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জয়নিউজ/সেকান্দর/বিশু
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...