সাইনবোর্ডে বাংলা: চসিকের অনন্য নজির

0

সর্বস্তরে বাংলা প্রচলনের আন্দোলনে অনন্য নজির স্থাপন করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের নিদের্শনায় নগরের সর্বত্র সাইনবোর্ডে বাংলার ব্যবহার নিশ্চিত করতে চলছে চসিকের অভিযান। যার সুফলও ইতোমধ্যেই দেখতে শুরু করেছে নগরবাসী।

জানা যায়, আ জ ম নাছির উদ্দীন মেয়রের দায়িত্বে নেওয়ার পর থেকে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী নগরের ৪১টি ওয়ার্ডে ইংরেজি সাইনবোর্ডের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করার নির্দেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে নগরের অনেক দোকান ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডে এখন দৃশ্যমান হচ্ছে বাংলা বর্ণের ব্যবহার। যা সর্বস্তরে বাংলার প্রচলনে অনন্য নজির হয়ে থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রামের মানুষ।

নগরের বিভিন্ন স্থানে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, জামালখান এলাকার অনেক প্রতিষ্ঠানের ইংরেজি সাইনবোর্ড পরিবর্তন করে বাংলা সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে। আগ্রাবাদ এলাকায় বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা ও নিউমার্কেট এলাকার অনেক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে দেখা গেছে বাংলা সাইনবোর্ড।

এ বিষয়ে বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান জয়নিউজকে বলেন, ১৯৫২ সালে মায়ের ভাষা বাংলার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির জন্য এদেশের মানুষ বুকের রক্ত দিয়েছে। তাই দেশের সর্বস্তরে বাংলা ব্যবহার নিশ্চিত করার বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে সাইনবোর্ডে বাংলা ব্যবহারের ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন যে ভূমিকা রাখছে, তা অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার। এজন্য মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই।

তিনি বলেন, উচ্চ আদালতের নির্দেশনার পর আমার নেতৃত্বে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নগরে শুধুমাত্র ইংরেজি সাইনবোর্ডের উপর কালো কালি মেরে দেয়। সেই কর্মসূচিতে চকবাজারের ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টুসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ একাত্মতা প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন জয়নিউজকে বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশনা বাস্তবায়নে প্রাথমিকভাবে বেশ কিছু এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ইংরেজি লেখা সাইনবোর্ডের হরফ কালি দিয়ে মুছে দেওয়া হয়েছে। অভিযান পরিচালনার পর অনেকে বাংলা সাইনবোর্ড লাগিয়েছেন। এই অভিযান সারা বছর চলবে। যতদিন পর্যন্ত সব প্রতিষ্ঠান বাংলায় সাইনবোর্ড ব্যবহার না করবে ততদিন পর্যন্ত এ অভিযান চলবে। শুধুমাত্র দূতাবাস এবং বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি প্রতিষ্ঠান ইংরেজিতে সাইনবোর্ড ব্যবহার করতে পারবে।

তিনি নগরবাসীর প্রতি অনুরোধ করেন, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে সাইনবোর্ডগুলো বাংলায় লেখার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আমাদের সবার উচিত হাইকোর্টের প্রতি সম্মান জানিয়ে এ নির্দেশ পালন করা।

চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সামসুদ্দোহা জয়নিউজকে বলেন, মেয়রের নেতৃত্বে সাইনবোর্ডে বাংলা ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য চসিক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। আগে কখনো এ ধরনের অভিযান পরিচালনা করা হয়নি। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন দায়িত্ব নেওয়ার পর এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এই অভিযান সামনের দিনগুলোতেও চলবে জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলার পাশাপাশি সাইনবোর্ড-বিলবোর্ডে ছোট করে ইংরেজি লেখা যাবে।

তিনি আরো বলেন, সাইনবোর্ড ও ব্যানার বাংলায় লেখার জন্য ২০১৪ সালে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছিল উচ্চ আদালত। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী ইংরেজি সাইনবোর্ডকে বাংলা করার জন্য অভিযান পরিচালনা করে যাবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।

জয়নিউজ/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...