রোবট কুকুরছানা ‘এইবো’

0

প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সনি যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে আনল ছোট্ট রোবট কুকুরছানা । এর নাম ‘এইবো’। আকারে যত ছোটই হোক না কেন, দামটা কিন্তু নেহাত কম নয় ! যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে এই কুকুরছানা কিনতে হলে গুনতে হচ্ছে ২ হাজার ৮৯৯ মার্কিন ডলার।

‘এইবো’তে রেবোটিক্স, আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স আর সেন্সরের মতো বেশকিছু অত্যাধুনিক প্রযুক্তি তারা ব্যবহার করেছে। এই রোবটের চোখে বসানো হয়েছে ওএলইডি, যাতে দেখে মনে হয় জীবন্ত কুকুরছানাই চোখ পিটপিট করছে। মোবাইলে ‘এইবো অ্যাপ’ ব্যবহার করে আপনি এর চোখের রং পরিবর্তন করতে পারবেন। তার নাকের ডগায় বসানো ক্যামেরা দিয়ে সে কোন ছবি তুললো, তা দেখতে পারেন। আবার শরীরে বসানো সেন্সরগুলো দিয়ে সে আশেপাশের পরিবেশ সম্পর্কে কী তথ্য নিচ্ছে, তাও জানতে পারবেন।

ক্যামেরা দিয়ে সে চিনবে আপনাকে আর আপনার আশপাশের মানুষকে। এভাবেই ‘এইবো’ দিনকে দিন শিখবে আর হয়ে উঠবে আরো বেশি স্মার্ট।

তবে শুধু যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর করেই ‘এইবো’কে তৈরি করা হয়েছে, তা কিন্তু নয়। এর বাহ্যিক অবকাঠামোতেও রয়েছে বেশ চমক। সাধারণত আমরা রোবটের চলাচল বলতে যে ধরনের সীমিত পরিসর বুঝে থাকি, ‘এইবো’র ক্ষেত্রে বিষয়টি বেশ চমকপ্রদ। অনেকগুলো সিঙ্গেল ও ডুয়েল এক্সিস জয়েন্টের কারণে ‘এইবো’ স্বাচ্ছন্দ্যেই টেবিলে গড়াগড়ি খেতে পারে, সোজা হয়ে বসতে পারে, আবার প্রভুর সামনে সে জীবন্ত কুকুরের মতো লেজও নাড়াতে পারে।

তবে ঘরের বাইরে বা ঘাসের মধ্যে ‘এইবো’কে নিতে বারণ করছে এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সনি। আর পানিতে তো নেওয়া যাবেই না। পরিষ্কার মেঝেই ‘এইবো’র জন্য সবচেয়ে ভালো জায়গা।

‘এইবো’র চার্জ অবশ্য খুব বেশিক্ষণ থাকে না। দু’ঘণ্টা পুরো চার্জ করার পর দু’ঘণ্টাই সময় কাটানো যাবে ওর সঙ্গে। মজার ব্যাপার হলো, চার্জ নেওয়ার সময় হলে ‘এইবো’ নিজেই চলে যাবে চার্জিং ডকে।

জয়নিউজ/পলাশ/আরসি
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...