‘নারী-পুরুষের সম্মিলিত চেষ্টায় এগিয়ে যাবে চট্টগ্রাম’

0

নারী-পুরুষের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ভিশন ২০২১ এবং রূপকল্প ২০৪১ এর বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন নারী নেত্রী ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট রেহানা বেগম রানু।

শুক্রবার (৮ মার্চ) সকালে নগরের মোমিন রোডের চট্টগ্রাম একাডেমি মিলনায়তনে  সামাজিক সংগঠন লিজেন্ড ফাউন্ডেশন আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবসের আলোচনা সভা ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সংগঠনের সভাপতি সাজ্জাদ হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহীদজায়া বেগম মুশতারি শফি। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগীতশিল্পী অ্যাডভোকেট বিশ্বজিৎ দাশ, পুষ্টিবিদ ডা. সোহেলী সরকার রোদেলা ও কবি করুণা আচার্য্য।

প্রধান অতিথি ফাইট ফর উইমেন রাইটসের সভাপতি অ্যাডভোকেট রেহানা বেগম রানু বলেন, আন্তর্জাতিক নারী দিবস নারী জাতির জন্য একটি অর্থবহ গৌরবের দিন। বর্তমান বিশ্বে নারীর অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক নারী দিবস গুরুত্বপূর্ণএকটি দিন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার নারী-পুরুষের সমতা আনয়নে নারী শিক্ষার বিস্তার, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারীর ক্ষমতায়নসহ সহিংসতা প্রতিরোধে নানামুখি আইন প্রণয়ন ও কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ফলে নারী-পুরুষের বৈষম্য আর ভেদাভেদ আগের চেয়ে অনেকটা কমেছে।

অ্যাডভোকেট রানু বলেন, দেশ গড়ার কাজে নারীরা পুরুষের সহযোদ্ধা। দেশের অর্থনীতি, রাজনীতি, সংস্কৃতি, বিচার বিভাগ, প্রশাসন, কূটনীতি, সশস্ত্র বাহিনী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নারীর সফল অংশগ্রহণ ও গৌরবোজ্জল ভূমিকা আজ বিশ্বব্যাপী প্রশংসনীয়। আর এসব সম্ভব হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার জাদুকরি নেতৃত্বে।

বেগম মুশতারি শফি বলেন, বাংলাদেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারীকে অন্ধকারে রেখে জাতির কল্যাণ সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যোগ্যতার ভিত্তিতে নারীদের সর্বক্ষেত্রে সম-অংশিদারিত্ব নিশ্চিত করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন।

অনুষ্ঠানে বেগম মুশতারি শফি ও রেহানা বেগম রানুকে লিজেন্ড ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

জয়নিউজ/বিশু
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...