কেমিক্যাল-ঘনচিনি ছাড়া আইসক্রিম কি চলেই না?

0

হাটহাজারী উপজেলায় কৃত্রিম রঙ, কেমিক্যাল আর ঘনচিনি দিয়ে ভেজাল আইসক্রিম তৈরি কোনোভাবেই বন্ধ হচ্ছে না। উপজেলা প্রশাসন নিয়মিত বিভিন্ন কারখানায় অভিযান চালাচ্ছে। ভেজাল আইসক্রিম জব্দ করে জরিমানা করা হচ্ছে, সংশ্লিষ্ট আইসক্রিম কারখানা মালিককে বার বার সর্তক করেও দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু বন্ধ হচ্ছে না মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক ভেজাল আইসক্রিম তৈরি।

জানা যায়, একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী তাদের মুনাফা কমে যাওয়ার আশংকায় এ পথ থেকে ফিরছেন না। সর্বশেষ শনিবার (২৩ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টায় হাটহাজারী পৌরসভার আব্বাসিয়ার পুল সংলগ্ন নিউ লাকি নামে একটি আইসক্রীম কারখানায় অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমিন। সেখানেও আইসক্রিমে ঘনচিনি ব্যবহারের প্রমাণ মিলেছে বলে জানান ইউএনও।

ইউএনও রুহুল আমিন জয়নিউজকে জানান, সতর্ক করার পরও আইসক্রিমে ঘনচিনি ব্যবহার করার অপরাধে ভেজাল আইসক্রিম তৈরির প্রতিষ্ঠান নিউ লাকি আইসক্রিমকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া এ কারখানা থেকে উদ্ধার ২ হাজার ভেজাল আইসক্রিম ধ্বংস করার পাশাপাশি কারখানাটি থেকে আইসক্রিমে ব্যবহৃত ঘনচিনি, বিভিন্ন ধরনের রঙ ও কেমিক্যাল জব্দ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আইসক্রিম ওই কারখানার সন্ধান পেয়ে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে অভিযানে গিয়ে আমি নিজেও বিস্মিত হই। কারখানার নোংরা ফ্লোরে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা হয়েছিল আইসক্রিম তৈরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকারক রঙ, কেমিক্যাল এবং স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ঘনচিনি।

জয়নিউজ/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...