‘সিঁড়ি না পাঠালে মারা যাবো’

0

রাজধানীর বনানীতে এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিট। যোগ দিয়েছেন বিমানবাহিনী, নৌবাহিনীর সদস্যরাও। এদের মধ্যে ঢামেকে নিহত ব্যক্তির নাম আব্দুল্লাহ আল ফারুক এবং কুর্মিটোলায় নিহতের নাম নিরস ভিগ্নে রাজা (৪০)। কুর্মিটোলায় নিহত রাজা শ্রীলঙ্কার নাগরিক এবং স্কেন ওয়েল লজিস্টিকসের ম্যানেজার পদে কর্মরত ছিলেন।

ওই ভবনে আটকা পড়েছেন অনেকেই। তাদের অনেকেই প্রাণ বাঁচাতে ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ছেন। আবার অনেকেই ভবনে আটকা পড়ে বাঁচার আকুতি জানিয়েছেন।

সেখানে একটি চিৎকার বারবার আসছে। ‘আমাদের সিঁড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। সিঁড়ি না পাঠালে আমরা ধোঁয়ায় মারা যাব।’

তাদের চিৎকার শুনে ফায়ার সার্ভিসের মই ভবনের জানালায় দাঁড় করানো হচ্ছে। সেগুলো বেয়ে অনেককে নামতে দেখা গেছে। আবার অনেকে দড়ি বেয়ে নামার চেষ্টা করছেন। অনেকে সিঁড়ির অপেক্ষা করে না পেয়ে আগুন থেকে বাঁচতে লাফিয়ে পড়েন।

পুরো ভবনে এখন শুধু ধোঁয়া আর ধোঁয়া। ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে আশপাশের ভবনও।

এফ আর টাওয়ারের ভেতর থেকে নিজের ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড করেন সেজুতি স্বর্ণা নামের একজন। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, এফ আর টাওয়ারে অবস্থানরত সবার নাকে-মুখে কাপড় চাপা দিয়ে হাঁটছেন, ভেতরটা পুরোটাই অন্ধকার।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটের দিকে এফ আর টাওয়ারের ৯ তলা থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। পরে এ আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো ভবনে।

এদিকে ২২তলা ভবনটিকে আটকা পড়েছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে কেউ কেউ লাফিয়ে পড়ে প্রাণে বাঁচার চেষ্টা করছেন। এ রকম আহত কয়েকজনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জয়নিউজ/অভিজিত/শহীদ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...