বিদায় টেলি সামাদ

0

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই। শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুর দেড়টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না…রাজেউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

চলতি বছরের শুরুতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) বেশ কিছুদিন ভর্তি ছিলেন তিনি। কিছু সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলেও তিনি স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন কি না তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন চিকিৎসকরা।

এর আগে গত ৪ ডিসেম্বর বুকে ইনফেকশনের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে স্কয়ার হাসপাতালে এবং পরে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয় তাঁকে। ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে টেলি সামাদের বাইপাস সার্জারি করা হয়। গত বছরের ২০ অক্টোবর জরুরি অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল তাঁর বাম পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলিতে।

১৯৭০ সালে ‘কার বউ’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন টেলি সামাদ। ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি অভিনয় করেছেন ৬০০টি ছবিতে।

টেলি সামাদ পড়াশুনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে। ‘কার বউ’ অভিনীত প্রথম ছবি হলেও দর্শকদের কাছে তিনি পরিচিতি পান আমজাদ হোসেনের নয়নমণি (১৯৭৬) ছবির মাধ্যমে। সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে বেড়ে ওঠা টেলি সামাদের সঙ্গীতেও রয়েছে সমান পারদর্শিতা। ‘মনা পাগলা’ ছবির সঙ্গীত পরিচালনা করেন তিনি। এছাড়া ৫০টিরও বেশি ছবিতে তিনি গান গেয়েছেন।

টেলি সামাদের আসল নাম আবদুস সামাদ। বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) ক্যামেরাম্যান মোস্তফা মামুন তাঁর আবদুস সামাদ নামটি বাদ দিয়ে টেলি সামাদ নামটা দিয়েছিলেন। সেই থেকে তাঁকে সবাই টেলি সামাদ নামেই চেনে।

অসংখ্য চলচ্চিত্র ও টিভি নাটকে নানা ধরনের চরিত্রে দুর্দান্ত অভিনয়শৈলী দিয়ে দর্শকদের বিনোদন ও হাসিতে মাতিয়ে রাখতেন টেলি সামাদ। একসময় কমেডিয়ান বললেই চলে আসত তাঁর নাম।

চল্লিশ বছর ধরে যিনি সবাইকে হাসিয়েছেন, জীবন সায়াহ্নে এসে অভাব, জরা, ক্লান্তি আর একাকীত্ব সেই কৌতুক সম্রাটের মুখের হাসিটুকু কেড়ে নিয়েছিল। ২০১৫ সালে তাঁর অভিনীত সর্বশেষ ছবি ‘জিরো ডিগ্রী’ মুক্তি পায়।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...