`সামাজিক ব্যবসার লক্ষ্য বৈশ্বিক ভারসাম্য তৈরি’

0

সামাজিক ব্যবসা বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বৈশ্বিক ভারসাম্য তৈরিই এ ব্যবসার অন্যতম লক্ষ্য। সামাজিক বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ছোট পুঁজির মাধ্যমে এ ব্যবসা শুরু হয়।

ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির সোশ্যাল বিজনেস ক্লাবের উদ্যোগে আইডিয়া কনটেস্টের পুরস্কার বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন উপাচার্য অধ্যাপক মু. সিকান্দার খান।

সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সেমিনার হলে এ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি আরো বলেন, ২০০৭ সালে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনুস সর্বপ্রথম সামাজিক ব্যবসার ধারণাটি প্রবর্তন করেন। সেই থেকে অনুপ্রেরণা, শিক্ষা ও নেতৃত্ব এই তিন মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে বিশ্বব্যাপী অবদান রেখে চলেছে ধারণাটি। বেশ কয়েকবার আমাদের ইডিইউর শিক্ষার্থীরা সামাজিক ব্যবসায় নতুন আইডিয়ার জন্য পুরস্কার গ্রহণ করেছে তার হাত থেকে।

‘সোশ্যাল বিজনেস জিনিয়াস’ শিরোনামের এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির মোট ২০টি দল। বাছাই পর্ব পার হয়ে ৬টি দল অংশ নেয় চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায়। এদের মধ্যে তিনটি দল জয়ী হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, বর্তমান পুঁজিবাদী ব্যবস্থাকে জনকল্যাণমুখী করতে সামাজিক ব্যবসার প্রসার জরুরি। এক্ষেত্রে ইডিইউর শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নতুন নতুন আইডিয়া উদ্ভাবন করছে, যা যুগোপযোগী অবদান রাখতে সক্ষম হবে। কিছুদিন আগেই কানাডায় সোশ্যাল বিজনেস প্রতিযোগিতার সেরা দশে স্থান পায় ইডিইউর দুটি দল। আমাদের শিক্ষার্থীদের এই সাফল্য প্রমাণ করে ইডিইউ বিশ্বমানের গ্র্যাজুয়েট গড়ে তুলছে।

প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে বিচারক ছিলেন অন্যসেবার স্বত্ত্বাধিকারী আবিদা সুলতানা, ইডিইউর সহকারী অধ্যাপক তুফাতুন নেসা চৌধুরী, সহকারী অধ্যাপক রুবিনা ইয়াসমিন ও প্রভাষক দেওয়ান মেহরাব আশরাফি।

এ প্রতিযোগিতায় আসা আইডিয়াগুলোর মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে সহজ পার্কিং, দ্বিতীয় হয়েছে আমব্রেলা কর্পোরেশন এবং তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে পটারি ইন্ডাস্ট্রি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

জয়নিউজ/বিশু

সরাসরি আপনার ডিভাইসে নিউজ আপডেট পান, এখনই সাবস্ক্রাইব করুন।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...