বিশ্বজুড়ে বৈশাখ

0

পহেলা বৈশাখ বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে সরকারি ছুটির দিন। দিনটি এপার-ওপার, দুই বাংলার ব্যবসায়ীদের জন্য নতুনভাবে ব্যবসায়ের হিসাব শুরুর একটি উপলক্ষ। দুই বাংলার সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা বাঙালিরাও সাড়ম্বরে পালন করে বিশেষ এই দিনটি। সে হিসেবে পহেলা বৈশাখ হচ্ছে বাঙালিদের সার্বজনীন উৎসব।

বাংলাদেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও মহাসমারোহে পালিত হয় পহেলা বৈশাখ। বাংলা বঙ্গাব্দের প্রথম দিনটি সেখানে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালিত হয়। নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় সমগ্র পশ্চিবঙ্গজুড়ে।

সংস্কৃতি, জ্ঞান-বিজ্ঞান, দর্শনচর্চার পীঠস্থান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শান্তিনিকেতন ও কলকাতার জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে বিশেষ আয়োজনে পালিত হয় পহেলা বৈশাখ। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত এ অনুষ্ঠান দু’টিতে নামে বাঙালির ঢল। মনিপুরীরাও নববর্ষে করে নানা আয়োজন। যাদের সংস্কৃতি উড়িষ্যা পর্যন্ত বিস্তৃত। আসামের মানুষ ‘রঙালি বিহু’ নামে পালন করে পহেলা বৈশাখ।

এছাড়া ভারতের একই উৎসব তামিলরা পালন করে ‘চিত্রাই’ নামে। তবে এটা পুরোটাই মন্দিরভিত্তিক উৎসব। পাঞ্জাবি শিখরাও ‘বৈশাখী’ পালন করে। প্রধানত শিখদের অমৃতসরের স্বর্ণমন্দির ঘিরে এ উৎসব পালিত হয়ে থাকে।

তবে বৈশাখ এখন আর শুধু বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। পুরো দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াজুড়ে পালিত হয় এ উৎসব।

সাদা হাতির দেশ থাইল্যান্ডেও পালিত হয় পহেলা বৈশাখ। এপ্রিলের ১৪ ও ১৫ তারিখ নিজস্ব রীতিতে তারা পহেলা বৈশাখ পালন করে। তাদের এই উৎসবের নাম ‘সঙ্ক্রান’। এদিন তারা পানি ছিটিয়ে এই উৎসব পালন করে। এই ‘সঙ্ক্রান’ শব্দটি আসলে ‘সংক্রান্তি’ থেকে আসা। থাইদের ‘সঙ্ক্রান’ পালনের রীতির সঙ্গে বাংলাদেশের পাহাড়ি জনপদে বিভিন্ন আদিবাসী গোষ্ঠীর পানির উৎসব বিজু ও সাংগ্রাইয়ের মিল রয়েছে।

মায়ানমারেও পালিত হয় পহেলা বৈশাখ। দেশটিতে পহেলা বৈশাখ পালন করা হয় ‘থিংগ্যান’ নামে। হিমালয় কন্যা নেপালেও পহেলা বৈশাখই বছরের প্রধান উৎসব। এদিন দেশটিতে সরকারি ছুটি থাকে।

শ্রীলঙ্কায় বৈশাখী উৎসব পালিত হয় ‘আলুথ আউরুদু’ নামে। লাউসে ‘পি-মাই-লাও’ নামে বৈশাখী উৎসবে মেতে থাকেন সেখানকার মানুষ। কম্বোডিয়ায় ‘চাউল চা থামে’।

আর ড্রাগনের দেশ চীনের উনান প্রদেশে ‘দাই’ সম্প্রদায় বুদ্ধের উদ্দেশে পহেলা বৈশাখ পালন করে। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানে তারা এ উৎসব পালন করে থাকেন।

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...