রোববার শপথ নিতে পারেন বিএনপির ৪ জন!

0

রাজনীতির মাঠে বড় ধরনের সংকটে রয়েছে বিএনপি। একদিকে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন, অন্যদিকে নির্বাচিতদের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়া নিয়ে দোলাচল। দুইয়ে মিলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের অবস্থান এখন দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছে। এরমধ্যেই শোনা যাচ্ছে রোববার শপথ নিতে পারেন বিএনপির নির্বাচিত চারজন সংসদ সদস্য!

সংবিধান অনুযায়ী ৩০ এপ্রিল শপথ গ্রহণের শেষ দিন। বিএনপির একটি অংশ খালেদা জিয়াকে মুক্তির শর্ত হিসেবে প্রয়োজনে সংসদে যাওয়ার পক্ষে। কিন্তু দলের প্রথমসারির বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট নেতা চান বিএনপির নির্বাচিতরা যাতে কোনোভাবেই শপথ না নেন। তাদের যুক্তি, বিএনপি থেকে নির্বাচিতরা শপথ নিলে বৈধতা পাবে সরকার।

শুধু তাই নয়, বিএনপির নির্বাচিতরা শপথ না নেওয়ায় সরকার দেশ-বিদেশে প্রতিনিয়ত যে ‘ভীতিতে’ আছে তা কেটে যাবে। তখন রাজনীতির মাঠে বিএনপির কার্যত আর কিছুই করার থাকবে না। সেই সঙ্গে দেশ-বিদেশে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন থমকে যেতে পারে, এমন শংকাও আছে তাদের।

কিন্তু বিএনপির টিকিটে যারা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন তারা এখন এ যুক্তি কোনোভাবেই মানতে রাজি নন। তাদের যুক্তি সংসদে বিএনপির এখনই যাওয়া উচিৎ। কারণ তারা বিগত দশ বছরে সরকার বিরোধী আন্দোলন সংগ্রাম করে খুব একটা সফলতা পাননি। বরং হাজার হাজার মামলার আসামি হয়ে ফেরারী জীবন কাটাচ্ছেন। সবকিছু বিবেচনায় বর্তমান সময়ে বিএনপি শপথ নিলে তাদের ওপর হামলা-মামলা ও নির্যাতনের মাত্রা কমে আসবে।

শুধু তাই নয়, শপথ নিয়ে তারা সংসদে গিয়ে বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য কথা বলতে পারবেন, এমন ধারণা তাদের। এজন্য তারা আর বিএনপির হাইকমান্ডের কঠোর নির্দেশনা মানতে চাইছেন না।

এর ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার বিএনপির নির্দেশ অমান্য করে জাহিদুর রহমান শপথ নিয়েছেন। এর আগে জোটসঙ্গী গণফোরামের সুলতান মনছুর ও মোকাব্বির হোসেন শপথ নিয়েছিলেন। সবমিলিয়ে বেশ ঝামেলায় আছে বিএনপি।

এদিকে একাধিক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, বড় ধরনের কোনো অঘটন না ঘটলে ওইদিন বিএনপির পাঁচ সংসদ সদস্যের মধ্যে চারজন শপথ নিতে পারেন।

জানা গেছে, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর খালেদা জিয়ার বার্তা ছাড়া শপথ গ্রহণ করবেন না। এছাড়া অন্য সবাই যাতে শপথ নিতে পারেন এজন্য বিএনপি কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে। তবে এ খবরের সত্যতা স্বীকার করতে কেউ রাজি হননি।

বিএনপির টিকিটে নির্বাচিত একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, হাইকমান্ডের অলিখিত ও অপ্রকাশিত সম্মতিতে বিএনপির সংসদ সদস্যরা শপথ নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও লন্ডন থেকে তারেক রহমান বিশেষ বার্তা পাঠানোয় বৃহস্পতিবার শপথ নিয়েছেন মোঃ জাহিদুর রহমান। তারই ধারাবাহিকতায় বিএনপির চারজন সংসদ সদস্য শপথ গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সূত্র জানিয়েছে, বিএনপি থেকে নির্বাচিত চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসন থেকে বিজয়ী আমিনুল হক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মো. হারুনুর রশীদ শপথ নিতে পারেন যেকোনো সময়। তাদের শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সংসদে দেখা গেছে বলেও ওই সূত্র জানায়।

দলীয় হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে কোন ধরনের অজুহাত না দেখিয়ে কৌশলে দলের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির টিকেটে নির্বাচন করা এক সংসদ সদস্য। যদিও বিএনপির কোন সিনিয়র নেতা এ প্রতিবেদকের কাছে এ ব্যাপরে কথা বলতে রাজি হননি।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জয়নিউজকে বলেন, আমি জানি না কারা শপথ নেবেন বা নিচ্ছেন। তিনি বলেন, দল করতে হলে দলের সিদ্ধান্ত মানতে হবে। দলের সিদ্ধান্ত যারা মানবেন না তারা দলের কেউ না। তিনি আরো বলেন, এখন পর্যন্ত বিএনপির আর কেউ শপথ নেবেন না, এটাই আমি জানি।

জয়নিউজ/জুলফিকার
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...