সবার ভাগ্যোন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী বদ্ধপরিকর: বিপ্লব বড়ুয়া

0

জাতির সামনে একটা ভিশন সেট করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগিয়ে চলেছেন। কৃষক, শ্রমিক থেকে শুরু করে ডাক্তার সাংবাদিক সবার জন্যই উনার রয়েছে আলাদা আলাদা প্ল্যান। সবার ভাগ্যোন্নয়নে তিনি বদ্ধপরিকর।

বুধবার (১ মে) নগরের সিনিয়রস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এসব কথা বলেন। এসময় প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন উপস্থিত ছিলেন।

বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, এমন পিএমের সঙ্গে কাজ করতে পারাটা সৌভাগ্যের। আপনারা জানেন, চট্টগ্রামকে আমুল বদলে দেওয়ার লক্ষে তিনি কাজ করে চলেছেন। এসময় ফ্লাইওভার, কর্ণফুলী টানেল, পতেঙ্গাসহ সকল উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন তিনি।

আরও পড়ুন: গণমাধ্যম যেকোনো সময়ের তুলনায় বেশি স্বাধীন: খোকন

তিনি বলেন, যেকোনো সাংবাদিক বিপদে পড়লে সরাসরি আমাকে কল দেবেন। দেশে এখন ৪১টার মতো টিভি চ্যানেল আছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এতে কর্মসংস্থান বাড়ছে, তবে বস্তুনিষ্ঠতা বজায় রাখতে হবে এবং সংবাদমাধ্যম এখন সবচেয়ে বেশি স্বাধীন।

তিনি আরো বলেন, টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়ার প্রতিটি কোণায় প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের ছোঁয়া দিতে নিরলস কাজ করে চলেছেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন বলেন, সাংবাদিক কল্যাণ তহবিলে ৩৫ কোটি টাকা আছে, যেটি প্রধানমন্ত্রী নিজ উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন। দেশের গণমাধ্যম যেকোনো সময়ের তুলনায় এখন বেশি স্বাধীন।

মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন চট্টগ্রামের সাংবাদিক নেতারা। আলোচনা করেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ।

এসময় সাংবাদিকরা ওয়েজবোর্ড, কল্যাণ তহবিল, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের বিদেশ ভ্রমণসহ অনলাইন নীতিমালার বিষয়ে জানতে চান।

উত্তরে খোকন বলেন, ২০১৩ সালে পিএম নিজে এ বিষয়ে মৌখিকভাবে জানিয়ে রেখেছেন যে, এখন সকল বিদেশ সফরে ঢাকার বাইরের সাংবাদিকরা একের অধিক থাকবেন। ভবিষ্যতে চট্টগ্রামের বিষয়টা অগ্রাধিকার পাবে।

আশরাফুল আলম খোকন বলেন, টিভির স্কিনে আর পত্রিকার পাতায় চাকচিক্য থাকলেও মিডিয়া এখন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এর অনেক কারণ আছে। বিজ্ঞাপনে ভাগ বসিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া, ইউটিউব ও গুগল। এই বিষয়গুলো নিয়ে ভাবতে হবে, কাজ করতে হবে।

আলাপকালে তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের সকল সমস্যা সংকট অচিরেই দূর হবে। কারণ বর্তমান তথ্যমন্ত্রী আপনাদের সন্তান এবং তিনি চট্টগ্রাম নিয়ে খুবই আন্তরিক।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও সিনিয়রস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ডা. সেলিম আকতার। পরে তিনি অতিথিদের হাতে ক্লাবের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট তুলে দেন।

জয়নিউজ/পার্থ/শহীদ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...