রমজানকে ঘিরে সবকিছুতে অগ্নিমূল্য

0

তিনদিন পরই শুরু হচ্ছে মুসলমানদের সিয়াম সাধনার মাস রমজান। আর রমজানকে ঘিরে সব পণ্যের মূল্য চড়া। বিক্রেতারা বলছে, সবজির দাম সামনের দিনগুলোতে কমবে। কিন্তু ক্রেতাদের অভিযোগ, সবজি, মাংস সবকিছুতেই অগ্নিমূল্য। রোজাকে ঘিরে একটা সিন্ডিকেট সবকিছুর মূল্য বাড়িয়ে দিয়েছে।

এদিকে মাছ ব্যবসায়ীরা বলছে, খারাপ আবহওয়ার কারণে জেলেরা মাছ ধরতে যেতে পারছে না। তাই বাজারে মাছের দাম বেড়েছে। দাম বাড়ার পণ্যের তালিকায় আরো রয়েছে পেঁয়াজ, আদা, রসুন, আলু। সপ্তাহের ব্যবধানে পণ্যগুলোর দাম ৫ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

শুক্রবার (৩ মে) কাজীর দেউড়ি, দেওয়ান বাজার, চকবাজার, রিয়াজউদ্দিন বাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩০ টাকায়, আদা ১১০ টাকায়, রসুন ১০৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি আলু ২২ টাকায়, পেঁপে ৫০ টাকায়, শসা ৬০ টাকায়, বরবটি ৫০ টাকায়, বেগুন ৫০ টাকায়, কচুর লতি ৪০ টাকায়, পটল ৫০ টাকায়, টমেটো ৮০ টাকায় , করলা ৫০ টাকায়, শিম ৫০ টাকায়, লাউ ৫০ টাকায়, মুলা ৩০ টাকায়, গাজর ৩০ টাকায়, ঢেঁড়শ ৩০ টাকায়, কাঁচা মরিচ ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাংসের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ১৫০ টাকায়, লেয়ার মুরগি ২০০ টাকায়, কক মুরগি ২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে গরুর মাংস ৬২০ টাকায়, খাসির মাংস ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাংসের দাম কমলেও বেড়েছে মাছের দাম। বাজারে প্রতি কেজি তেলাপিয়া ১৮০ টাকায় রুই ৩৫০ টাকায়, পাবদা ৬০০ টাকায়, চিংড়ি ১৫০০ টাকায়, শিং ৬০০ টাকায়, বোয়াল ৫০০ টাকায়, চিতল ৮০০ টাকায় এবং ইলিশ মাছ ৯০০ থেকে ১ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...