ফণী: সারাদেশে নিহত ১৬

0

ঘূর্ণিঝড় ফণী শনিবার (৪ মে) সকাল ৬টা থেকে উত্তর-পূর্বদিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে সাতক্ষীরা, যশোর, খুলনা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে।

শুক্রবার (৩ মে) রাত থেকেই ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাব পড়তে থাকে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে। এরইমধ্যে পটুয়াখালী ও বরগুনাতে বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে অনেক গ্রাম। আর সারাদেশে বজ্রপাত ও ঘর চাপা পড়ে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছে অন্তত ১৬ জন।

এরমধ্যে নোয়াখালীতে ঘর চাপা পড়ে ১ জন নিহত ও অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। বরগুনার পাথরঘাটা খলিফার হাটে ঘর চাপা পড়ে ২ জন নিহত হয়েছে। বাগেরহাটের থানপুরে গাছের ডাল পড়ে ১ মহিলার মৃত্যু হয়েছে। বজ্রপাতে কিশোরগঞ্জে ৬, নেত্রকোণায় ২, ভোলাতে ১, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২ এবং মেহেরপুরে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ফণীর প্রভাবে সারাদেশে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে এবং দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। এটি বাংলাদেশে ৬ ঘণ্টা অবস্থান করতে পারে। এরপর এটি আবার ভারতে মেঘালয়ে প্রবেশ করবে। বাংলাদেশে অবস্থানের সময় এর গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটার।

জয়নিউজ/আরসি

 

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...