ভারতীয় পণ্যে সয়লাব মিমি

0

আর ক’দিন পরই ঈদ। তাই ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত নগরবাসী। ফুটপাত থেকে শুরু করে অভিজাত শপিংমল- সর্বত্র সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে ঈদের কেনাকাটা।

নগরের প্রবর্তক মোড়ের অভিজাত শপিংমল মিমি সুপার মার্কেট। মূলতঃ বিত্তবানদের আনাগোনা বেশি এ মার্কেটে। নারী-পুরুষ-শিশুদের পছন্দের পোশাক, জুয়েলারি, কসমেটিকস, জুতা- কি নেই এ মার্কেটে!

দেশি কাপড়ের পাশাপাশি এ মার্কেটে এবার ঈদ উপলক্ষে আনা হয়েছে ভারতীয়, পাকিস্তানি ও চায়না শাড়ি। মার্কেটের চন্দ্রবিন্দু বুটিকস, বধূয়া, আঁচল শাড়িজ, পিন্ধন, বাঁধন, বন্ধন, মানসী, কানন, শাওনভাঁদো, সুন্দরীসহ বিভিন্ন শাড়ির দোকানে রয়েছে কারুকাজ করা দেশি-বিদেশি শাড়ির বিপুল সমাহার।

বাঁধন শাড়ি হাউসের বিক্রয়কর্মী আহম্মদ সোহেল জয়নিউজকে জানান, সকাল ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বেচাকেনা হচ্ছে। সামনে বিক্রি আরো বেড়ে যাবে।

তিনি বলেন, ক্রেতার চাহিদার ওপর ভিত্তি করে এই মার্কেটে ঈদ পোশাক তোলা হয়েছে। তবে ক্রেতাদের ব্যাপক চাহিদা ভারতীয় পণ্যের দিকে। তবে দেশি পণ্যেরও কদর রয়েছে। ক্রেতার চাহিদাটা মাথায় রেখে এবার দেশি পণ্যের চেয়ে ব্যবসায়ীরা ভারতীয় পণ্য বেশি তুলেছেন।

এই মার্কেটে শপিংয়ে আসা ফারজানা জয়নিউজকে জানালেন, এখানে দাম একটু বেশি হলেও শাড়ির কালেকশন ভালো। বলতে গেলে শাড়ির জন্য তাই মিমিতে আসা।

এদিকে মিমি সুপারের স্বর্ণের দোকানগুলোতেও চোখে পড়ার মতো ভিড়। কর জুয়েলার্সের বিক্রয়কর্মী মো. শাহীন জয়নিউজকে বলেন, রমজান মাসে বেচাকেনা জমে ওঠে। এ বছর এখনো বিক্রি তেমন শুরু হয়নি। আশা করছি, সামনের দিনগুলোতে বিক্রি ভালো হবে। তবে অর্ডার পাচ্ছি ভালো।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...