স্টোকসের ‘থ্রি ডাইমেনশনাল’ নৈপুণ্যে স্বাগতিকদের জয়

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই বলা হয়েছিল এ আসর হবে অলরাউন্ডারদের। তারই প্রতিফলন হলো উদ্বোধনী ম্যাচে। অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের ‘থ্রি ডাইমেনশনাল’ নৈপুণ্যে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১০৪ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভ সূচনা স্বাগতিক ইংল্যান্ডের।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) ওভালে শুরু হওয়া ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ৩১১ রানের পুঁজি পায় ইংল্যান্ড। যেখানে দলীয় সর্বোচ্চ ৭৯ বলে ৮৯ করেন বেন স্টোকস। ফিল্ডিংয়েও নিয়েছেন দুর্দান্ত একটি ক্যাচ। বোলিংয়ে নেন ১২ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট। অবধারিতভাবে স্টোকসই হয়েছেন ম্যাচসেরা।

এদিন ইংলিশ ওপেনারদের আটকাতে প্রথম ওভারেই লেগ স্পিনার ইমরান তাহিরের হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিয়ে ম্যাচের দ্বিতীয় বলেই ফেরান দারুণ ফর্মে থাকা জনি বেয়ারেস্ট্রোকে।

জনি বেয়ারেস্ট্রোর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ইংল্যান্ড। তবে ওপেনার জেসন রয় এবং জো রুটের ব্যাটিংয়ে ভর করে প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠে ইংলিশরা। দু’জনই তুলে নেন অর্ধশতক। জেসন রয় (৫০) করে ফেলুকাওয়ের শিকার হয়ে ফিরে যান।

আর পরের ওভারে জো রুটকে (৫১) নিজের শিকার বানান কাগিসো রাবাদা। দলীয় ২১৭ রানে তাহিরের বলে মারকারামের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ইংলিশ দলপতি এডউইন মরগান (৫৭)। এরপর ম্যাচের ৪১তম ওভারে এনগিডির বলে বোল্ড হোন ১৬ বলে ১৮ রান করা বাটলার। ৪৩তম ওভারের শেষ বলে এনগিডির বলে ক্যাচ তুলে দেন মঈন আলী।

৪৮তম ওভারে রাবাদার বলে বিদায় নেন ক্রিস ওকস (১৩)। ৪৯তম ওভারে আবারো রাবাদার আঘাত। আউট করেন ম্যাচের সর্বোচ্চ স্কোরার বেন স্টোকসকে (৮৯)। লিয়াম প্লাংকেট ৯ আর জোফরা আর্চার ৭ রানে অপরাজিত থাকেন।

৩১২ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের চতুর্থ ওভারে ব্যক্তিগত ৫ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়েন প্রোটিয়া ওপেনার হাশিম আমলা। ইনিংসের অষ্টম ওভারে আর্চারের বলে জো রুটের হাতে ক্যাচ তুলে দেন প্রোটিয়া ওপেনার মার্কারাম। ১২ বল খেলে ২ চারের মারে ১১ রান করেন তিনি। নবম ওভারে আর্চারের দ্বিতীয় শিকার হন প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। আর্চারের বলে ফাইন লেগে ক্যাচ তুলে দিলে মঈন আলী সহজেই তালুবন্দি করেন। আউট হওয়ার আগে ৭ বল খেলে ৫ রান করেন তিনি।

২২তম ওভারের শেষ বলে প্লাংকেটের বলে হাফ সেঞ্চুরিয়ান ডি কক স্কোয়ার লেগে জো রুটের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন। ৭৪ বল খেলে তার ৬৮ রানের ইনিংসে ছিল ৬টি চার ও ২টি ছয়ের মার। ২৬তম ওভারে মঈন আলিকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে বেন স্টোকসের হাতে ধরা পড়েন ১১ বলে ৮ রান করা জেডি ডুমিনি। পরের ওভারে রান আউট হয়ে বিদায় নেন ডুইয়ান প্রিটরিয়াস (১)। ম্যাচের ৩১তম ওভারে আর্চারের তৃতীয় শিকার হন হাফ সেঞ্চুরিয়ান ভ্যান ডার ডুসেন। তার ৬১ বলে সাজানো ৫০ রানের ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ১টি ছয়ের মার। ডুসেনের বিদায়ের পর আবারো ব্যাট হাতে নামেন হাশিম আমলা। তবে ম্যাচের ৩৮তম ওভারে ২৩ বলে খেলে ১৩ রানে প্লাংকেটের বলে বাটলারের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি।

ইনিংসের ৩৫তম ওভারে আদিল রশিদের বলে বাউন্ডারি সীমানায় ক্যাচ তুলে দেন আন্দেইল ফেলুকাওয়ো। বেন স্টোকসের দুর্দান্ত এক ক্যাচে ফেরার আগে তিনি ২৫ বলে চারটি বাউন্ডারিতে করেন ২৪ রান। শেষ দিকে রাবাদা করেন ১১ রান।

ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চার ৩, লিয়াম প্লাংকেট ও বেন স্টোকস ২, আদিল রশিদ আর মঈন আলি ১টি করে উইকেট নেন।

জয়নিউজ/পার্থ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...