যেভাবে কাটছে নগরপিতার ঈদ

0

বৈঠকখানায় বসে আছেন অপেক্ষারতরা। কেউ লাইন ধরে হাত মেলাচ্ছেন, কেউ পায়ে ধরে সালাম দিচ্ছেন, কেউবা করছেন কোলাকুলি। ছোটদের সেলামি দিচ্ছেন নিজ হাতে। আবার কেউ না খেয়ে যাচ্ছেন কিনা তার তদারকিও করছেন। আবার সেলফি শিকারিদের আবদার মেটাচ্ছেন হাসিমুখে। যারা ছবি তুলতে চাচ্ছেন তাদেরও করছেন না নিরাশ।

এভাবেই নিজের আন্দরকিল্লার বাসভবনে ঈদ কাটছে নগরপিতা ও জয়নিউজ চেয়ারম্যান আ জ ম নাছির উদ্দিনের। আর ঈদের দিনে প্রিয় নেতা ও মেয়রের সাক্ষাত পেয়ে সবাই খুশি।

বুধবার (৫ জুন) সকাল ৮টায় নগরের জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদে ঈদের প্রথম জামাতে অংশ নেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। এরপর জামাতে দলীয় নেতা-কর্মী, বিরোধী দলীয় নেতা ও সাধারণ জনগণের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

পরে বাবার কবর জিয়ারত করেন। কবর জিয়ারত করে আন্দরকিল্লার বাসভবনে চলে যান তিনি। সেখানে অপেক্ষারত দর্শনার্থী, দলীয় নেতা-কর্মী ও ভিআইপিদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

দুপুর দুইটার দিকে মেয়রের সঙ্গে দেখা করতে আসেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মাহবুবর রহমান।

এসময় মেয়র তাকে স্বাগত জানান এবং একান্তে কিছুক্ষণ কথা বলেন। পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে আরো ছিলেন সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (উত্তর) শাহ আব্দুর রউফ, পাঁচলাইশ জোনের সহকারী কমিশনার দেবদূত মজুমদার, কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন।

এদিকে, মেয়রের বাসভবনে আসা সকল অতিথিকে সেমাই, কাচ্চি বিরিয়ানি ও জর্দা দিয়ে আপ্যায়ন করা হচ্ছে। আগত অতিথিরা কেউ যেন না খেয়ে যেতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখছেন স্বয়ং নগরপিতা।

কুশল বিনিময়ের পরেই সবাইকে অনুরোধ করে বলছেন, ‘অবশ্যই খেয়ে যাবেন।’

বাবার সঙ্গে মেয়রের বাসায় আসা ৩য় শ্রেণী পড়ুয়া রাকিব জয়নিউজকে বলেন, মেয়র আঙ্কেলকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে এসেছি। উনাকে পায়ে ধরে সালাম করেছি। উনি আমাকে ১০০ টাকা সালামি দিয়েছেন।

মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন জয়নিউজকে বলেন, যেহেতু ঈদের দিন সবার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করছি। অতিথিদের জন্যও আপ্যায়নের ব্যবস্থা করেছি।

তিনি বলেন, সুন্দর চট্টগ্রাম নগর নির্মাণে সবার সহযোগিতা লাগবে। সবাই যার যার অবস্থান থেকে কাজ করে গেলে অবশ্যই চট্টগ্রাম একটি বিশ্বমানের নগরে পরিণত হবে।

জয়নিউজ/বিশু
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...