‘তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়াতে হবে’

বাজেট ভাবনা:

0

চট্টগ্রাম জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (জেসিআই) সভাপতি অসীম কুমার দাশ বলেছেন, আশা করছি, এবারের বাজেটে অর্থমন্ত্রী আগামীদিনের তরুণদেরকে উদ্যোক্তা হতে সহায়তার হাত বাড়াবেন। নারী উদ্যোক্তার মতো সিঙ্গেল ডিজিটে তরুণ উদ্যোক্তাদের ব্যাংক থেকে লোনের সুবিধা দেওয়া। তাহলে তরুণ উদ্যোক্তারা এগিয়ে আসবেন। প্রতিযোগিতার বাজারে টিকে থাকবেন। অনেক উদ্যোক্তা আছেন যারা স্বল্প পুঁজি নিয়ে ব্যবসা করছেন। আবার দরিদ্র পরিবারের যে শিক্ষিত তরুণ ভালো উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন, তাদের মধ্যে শতকরা পাঁচজনই সফল হন না।

তিনি এর প্রধান কারণ হিসেবে মনে করেন সঠিক প্রশিক্ষণের অভাব, পারিবারিক সমস্যা, আর্থিক অবস্থা ও ঝুঁকি। উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য উপরোক্ত বাস্তব সমস্যাগুলোর সমাধান করে এর জন্য একটা অনুকূল ও উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে হবে। প্রণয়ন করতে হবে যুগোপযোগী সহজ নীতিমালা।

তিনি বলেন, বাণিজ্যিক ব্যাংককে বাধ্য করতে হবে বিনিয়োগের একটি অংশ এ তরুণদের জন্য বরাদ্দ করতে। স্টার্টআপ ব্যবসার জন্য কর মওকুফের সুবিধা দিতে হবে। উদ্যোক্তাদের জন্য অবারিত তথ্য ও জ্ঞানভাণ্ডার উন্মুক্ত করে দিতে হবে। আগামীর বাংলাদেশে আমরা ঘরে ঘরে চাকরিজীবি চাই না, বরং ঘরে ঘরে চাকরিদাতা চাই। তরুণদের চমৎকার চমৎকার আইডিয়াগুলো যাতে সঠিক দিকনির্দেশনা পায়, সেদিকে নজর দিতে হবে আমাদের। অপার সম্ভাবনার বাংলাদেশের সবটুকু সম্ভাবনাকে যদি ধারণ করতে হয়, তাহলে আমাদের তরুণদেরকে এগিয়ে যাওয়ার পথ করে দিতে হবে। পথ খুব দীর্ঘ নয়, আর সে পথে যাত্রা শুরু করতে প্রথম পদক্ষেপটি এ বছরই আমাদের অর্থমন্ত্রী নেবেন, এমনই আশা রাখছি।

এই তরুণ ব্যবসায়ী নেতা বলেন, পৃথিবীর বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীরা চাকরি খোঁজার চেয়ে চাকরির ক্ষেত্র তৈরি করাটা বেশি পছন্দ করেন। তারা উদ্যোক্তা হতে চান। বাণিজ্যিক বা অবাণিজ্যিক যে কোনো উদ্যোক্তা। এই পেশাটি এখন সারা পৃথিবীতে সবচেয়ে সম্মানজনক পেশা হিসাবে স্বীকৃত। এর প্রধান কারণ হলো, উদ্যোক্তারা নিজের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি আরও অনেক মানুষের কর্মসংস্থান করেন।

কিছু নেই নেই করেও আমাদের রয়েছে ১৭ কোটি মানুষের একটি দেশ। প্রায় ৩০ কোটি একই ভাষাভাষী মানুষের একটি সমাজ। এই বিরাট জনসংখ্যার উৎপাদন ও সেবাখাতের সমস্যাগুলো সমাধান করতে অনেক উদ্যোক্তা দরকার। এছাড়া সারাবিশ্বের সেবাশিল্পের সম্ভাবনা তো রয়েছেই। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ভাগ্য পরিবর্তনে আমাদের জাতিগতভাবে উদ্যোক্তা সংস্কৃতি রপ্ত করার চেষ্টা করা দরকার।

জয়নিউজ/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...