নারী উদ্যোক্তা উন্নয়নে সহায়ক বাজেট: মনোয়ারা হাকিম আলী

0

‘২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন, বাজার স্থিতিশীল রাখা এবং সাধারণ জনগণের জীবনমান উন্নয়নে সহায়ক হবে।’

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মনোয়ারা হাকিম আলী এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, শিশুদের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধি দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। যোগাযোগ খাতের সংস্কার ও উন্নয়নের ফলে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি বিকাশে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। বর্তমান সময়ে সবচাইতে আলোচিত ব্যাংকিং ও আর্থিক খাতের সংস্কারের উদ্যোগ অত্যন্ত সময়োপযোগী বলেও আমি মনে করি।

তিনি বলেন, কৃষি ও কৃষিজাত পণ্যের মূল্যহ্রাস এবং সারের মূল্য স্থিতিশীল রাখা কৃষকের জন্য সহায়ক হবে। এছাড়া সিগারেট ও তামাক জাতীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি যুক্তিযুক্ত, যা ধূমপানে মানুষকে নিরুৎসাহিত করবে।

ভোজ্য তেলের মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ জনগণের জীবনযাত্রায় কিছুটা ব্যাঘাত ঘটাবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, অগ্রিম কর প্রদানের সীমা ৪ লাখ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৬ লাখ টাকা করা এবং এসএমই খাতে টার্নওভার ৩৬ লাখ টাকা থেকে ৫০ লাখ টাকায় উন্নীত করা ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে সমৃদ্ধ করবে। তৈরি পোশাক শিল্পের করের হার অব্যাহত রাখা এবং হস্তশিল্প রপ্তানিতে ৫ বছর পর্যন্ত করমুক্ত রাখার প্রস্তাব উভয় শিল্পের জন্য ইতিবাচক। সর্বোপরি, এসএমইসহ নারী উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে এবারের বাজেট অত্যন্ত সহায়ক হবে।

‘তবে ব্যক্তিখাতে করের সীমা বিশেষ করে নারী উদ্যোক্তাদের করের সীমা বৃদ্ধি করা আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত প্রয়োজন। এছাড়া দুদককে শক্তিশালী করার প্রস্তাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীকে সাধুবাদ জানাই।’ যোগ করেন তিনি।

জয়নিউজ/এমজেএইচ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...