‘জঙ্গিবাদ দমনে আলেম সমাজের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ’

0

‘ইসলাম কখনো জঙ্গিবাদকে সমর্থন করে না। বরং জঙ্গি সংগঠনগুলো কোরআন-হাদিসের অপব্যাখা করে সাধারণ মানুষদের মধ্যে অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করছে। তাই জঙ্গিবাদের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করতে আলেম সমাজকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।’

শনিবার (২২ জুন) সকালে নগরের সেগুনবাগান তালীমূল কুরআন কমপ্লেক্স মাদরাসার মিলনায়তনে সুচিন্তা বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম বিভাগের আয়োজনে জঙ্গিবাদ বিরোধী আলেম ওলামা শিক্ষার্থী সমাবেশে এসব কথা বলেন বক্তারা।

সুচিন্তা বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম বিভাগের সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট জিনাত সোহানা চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার পরিত্রাণ তালুকদার।

মাওলানা নিজাম উদ্দীন আল হোসানীর সঞ্চালনায় এতে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা ক্বারী ফজলুল করিম।

এতে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় শ্রমিক লীগের সহসভাপতি কামাল উদ্দীন চৌধুরী, সাংবাদিক মুহাম্মদ সেলিম, মুফতি নুর মোহাম্মদ, হাফেজ নাজিম উদ্দীন, হাফেজ আজিজুল্লাহ কুতুবী, মাওলানা হাফেজ নাছিরুদ্দীন প্রমুখ।

কোরআন তেলাওয়াত ও শিক্ষার্থীদের সমবেত জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শুরু হয়ে কার্যক্রমটি শেষ হয় সবার স্বতঃস্ফূর্ত জয় বাংলা স্লোগানের মাধ্যমে। অনুষ্ঠানের শেষপর্যায়ে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্রশ্নোত্তর পর্ব পরিচালনা করেন সুচিন্তা স্টুডেন্টস এন্ড ইয়ুথ উইং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহবায়ক সৌরভ মুৎসুদ্দী ও কার্যকরী সদস্য মাহিন আল মামুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিত্রান তালুকদার বলেন, একটা সময় মনে করা হতো মাদ্রাসা থেকেই জঙ্গিবাদ সৃষ্টি হয়। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে সেই ধারণা ভুল বলে প্রমাণিত হয়েছে। এখন জঙ্গি সংগঠনগুলো মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টার্গেট করেছে। বাংলাদেশে জঙ্গি প্রতিরোধে আলেম সমাজকে আরো অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে জিনাত সোহানা বলেন, বাংলাদেশের জঙ্গি প্রতিরোধে আলেম সমাজ যে ভূমিকা রাখছেন, তা প্রশংসনীয়। তবে এতে তৃপ্তির ঢেকুর তুললে হবে না। আলেম সমাজকে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে জঙ্গি প্রতিরোধে।

জয়নিউজ/এমজেএইচ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...