এক বিয়ের অনুষ্ঠানেই খরচ ২০০ কোটি টাকা!

0

গেল বছর মেয়ের বিয়েতে ভারতের ধনকুবের মুকেশ আম্বানি খরচ করেছেন ১০ কোটি ডলার, যা বাংলাদেশি টাকায় ৮৪০ কোটি টাকা। বিশ্বের সবচেয়ে দামি বিয়ে ছিল এটি। এবার প্রবাসী ভারতীয় ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিতর্কিত ব্যবসায়ী পরিবার গুপ্ত ব্রাদার্স এর দুই উত্তরাধিকারীর বিয়ে হয়েছে। এতে খরচ হয়েছে ২০০ কোটি টাকা।

বিয়ের অনুষ্ঠানে এমন কিছু যেন না করা হয় যা পরিবেশের ক্ষতি করবে এমন প্রতিশ্রুতি রক্ষার্থে আদালতে ৩ কোটি টাকা আগাম জমা দিতে হয় তাদের। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় ২০০ অতিথি বিয়েতে যোগ দেন। বিয়েতে হাজির হন বাঘা বাঘা রাজনীতিবিদরাও।

উত্তর প্রদেশের সাহরানপুরের বাসিন্দা এই গুপ্ত পরিবার। ১৯৯৩ সালে তারা দক্ষিণ আফ্রিকা চলে যায়। সেখানে সাহারা কম্পিউটার্সের প্রতিষ্ঠা করেন। ‘দ্য নিউ এজ’ নামে একটি সংবাদপত্রও তাদের মালিকানাধীন।

তিন ভাই অজয় গুপ্ত, অতুল গুপ্ত এবং রাজেশ গুপ্ত মিলে ব্যবসা সামলান। অজয় গুপ্তর ছেলে সূর্যকান্ত গুপ্তর বিয়ে হয়েছিল দিল্লির বাসিন্দা হীরা ব্যবসায়ী সুরেশ সিঙ্ঘলের মেয়ে কৃতিকার সঙ্গে বিয়ে হয় সূর্যকান্তের। শশাঙ্কের বিয়ে হয়েছে দুবাইয়ের ব্যবসায়ী বিশাল জালানের মেয়ে শিবাঙ্গির সঙ্গে।

আউলিতে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১০ হাজার ফুট উঁচুতে অবস্থিত একটি বিলাসবহুল রিসোর্ট এই বিয়ের অনুষ্ঠান বসে। এর কয়েক দিন আগে থেকেই ওই এলাকার সমস্ত হোমস্টেট এবং হোটেল বুক করে নেয়া হয়। বিমানে করে উড়ে আসেন অতিথিরা। তাদের দামি উপহারও দেয়া হয়। বিয়ের অনুষ্ঠানের মধ্যেই গত ২০ জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে সেখানে পৌঁছান বাবা রামদেব।

অভিনেতা সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, নোরা ফতেহি, ঊর্বশী রাউতেলা, র্যাপার বাদশা, কৈলাশ খের, জাভেদ আলী, আস্থা গিল এবং শ্রুতি পাঠকের মতো শিল্পীরাও পারফর্ম করেন।
ভারতের এই গুপ্ত পরিবারের উত্থান নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। দুর্নীতিতে অভিযুক্ত দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট জেকব জুমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল তাদের। এমনকি গুপ্ত পরিবারই আড়াল থেকে জুমা সরকারকে পরিচালনা করত বলেও অভিযোগ রয়েছে।

জয়নিউজ/পিডি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...