প্রত্যয়ী আফগানরা, প্রস্তুত টাইগাররাও

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে  আফগানিস্তান আজ বাংলাদের মুখোমুখি। সাউদাম্পটনের রোজ বোলে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইবের সঙ্গে টস করতে নামবেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

আফগানদের সঙ্গে ২০১৪ সালেই ওয়ানডেতে প্রথমবারের মুখোমুখি হওয়াটা কোনোভাবেই সুখকর ছিল না বাংলাদেশের জন্য। সেবার ১ মার্চ নারায়নগঞ্জের ফতুল্লায় আফগানিস্তানের মুখোমুখি বাংলাদেশকে হারের লজ্জায় পড়তে হয়েছে ৩২ রানে।

সেই থেকে এখনও পর্যন্ত মোট ৭বার মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ-আফগানিস্তান। এর মধ্যে ৪ বার জিতেছে বাংলাদেশ, ৩ বার আফগানিস্তান। এর মধ্যে বিশ্বকাপে ১ বারই মুখোমুখি এবং ১বারই জিতেছে বাংলাদেশ।

এখনও পর্যন্ত ৬ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ জিতেছে ২টিতে, হেরেছে ৩টিতে এবং পরিত্যাক্ত হয়েছে একটি। পয়েন্ট ৫। অন্যদিকে আফগানিস্তানও খেলেছে ৬টি ম্যাচ। কোনো জয় নেই, সবগুলোতেই হার।

আজকে ম্যাচে পিছিয়ে থাকা আফগানদের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প চিন্তা করছে না বাংলাদেশ। তবে গত বছর আরব আমিরাতে এশিয়া কাপের দুই ম্যাচে আফগানিস্তান ভুগিয়েছে মাশরাফিদের। সেই শিক্ষা থেকেই সতর্ক বাংলাদেশ। ঠাণ্ডা মাথায় আফগানদের মোকাবিলা করতে শিষ্যদের বলেছেন কোচ স্টিভ রোডস।

এছাড়া দুই দিন আগে এখানেই ভারতকে কাঁপিয়ে দিয়েছিল আফগানিস্তান। বোঝাই যাচ্ছে রোজ বোলের এই উইকেটে স্পিনাররা ভালো সুবিধা পাবে। এই ধরনের উইকেটে ২৭০ রানকে নিরাপদ স্কোর বলা যায়।

মাশরাফি জানালেন একই কথা। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমার ধারণা স্পিন কাজ করবে ভালোভাবে। অন্য উইকেটের মতো হয়তো তিনশ রান লাগবে না। তবে এতটুকু নিশ্চিত এখানে ব্যাটিং করা সহজ হবে না।’

সংবাদ সম্মেলনে আফগান অধিনায়ক নাইবের কণ্ঠে বাংলাদেশের প্রতি সমীহই দেখা গেল। তবে জানিয়েও দিলেন নিজেদের সামর্থ্যের কথা।

তিনি বলেন, শেষ ম্যাচে আমরা হেরেছি, কিন্তু ভালো কিছুও করেছি। বাংলাদেশের বিপক্ষে আরও বেশি চেষ্টা থাকবে।

বাংলাদেশের একাদশে দুটি পরিবর্তন আসতে পারে ধারণা করা হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে না পারা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মোসাদ্দেক হোসেন ফিরতে পারেন। মোসাদ্দেকের ফেরার সম্ভাবনা বেশি থাকলেও সাইফউদ্দিনের ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। টসের আগে তার সবশেষ অবস্থা দেখেই তার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে টিম ম্যানেজমেন্ট।

জয়নিউজ/পিডি

 

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...