‘নৌবাহিনীকে ত্রিমাত্রিক বাহিনী করার পরিকল্পনা রয়েছে’

0

বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার (ডিইও) ২০১৯/এ ব্যাচের নবীন কর্মকর্তাদের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (২ জুলাই) সকালে পতেঙ্গায় নেভাল একাডেমিতে এ কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে কমান্ডার চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চল রিয়ার এডমিরাল এম. আবু আশরাফ প্রধান অতিথি হিসেবে কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও সালাম গ্রহণ করেন।

কুচকাওয়াজ শেষে প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে স্বাধীনতার স্থপতি, মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। এছাড়া তিনি স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী সকল বীর নৌসেনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ ত্যাগের কথা উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের প্রয়োজনে একটি আধুনিক ও শক্তিশালী নৌবাহিনী গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিলেন। তার আলোকে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে নৌবাহিনীকে আধুনিক ও যুগোপযোগী ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়ন, যুদ্ধজাহাজ সংগ্রহ এবং বিদ্যমান জাহাজসমূহের অপারেশনাল সক্ষমতা বৃদ্ধিতে বাস্তবমুখী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রধান অতিথি নবীন কর্মকর্তাদের নেভাল একাডেমি থেকে অর্জিত বিদ্যাকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের যোগ্য কর্মকর্তা হিসেবে গড়ে তোলার আহবান জানান।

তিনি আধুনিক এ প্রশিক্ষণ সুবিধাকে সার্বিকভাবে ব্যবহার করে দেশের সমুদ্রসীমার সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আত্মনিয়োগ করার পাশাপাশি জাতীয় নিরাপত্তা ও অগ্রগতিতে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন। তিনি পেশা হিসেবে দেশসেবার এ পবিত্র দায়িত্ব বেছে নেওয়ায় নবীন কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান।

উল্লেখ্য, এ কুচকাওয়াজের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২০১৯/এ ব্যাচের ১৩ জন ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার স্বল্পমেয়াদি প্রশিক্ষণ শেষে র‌্যাংক ব্যাজ পরিধান করেন।

ব্যাচের কর্মকর্তা এক্টিং সাব লে. উমায়ের আলম ছয় মাস মেয়াদি প্রশিক্ষণে সকল বিষয়ে সর্বোচ্চ মান অর্জন করে শ্রেষ্ঠ ও চৌকশ ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার হিসেবে ‘বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন’ স্বর্ণপদক লাভ করেন।

জয়নিউজ/আরডি/আরসি

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...