‘চট্টগ্রামের সমাবেশ হবে খালেদা জিয়ার মুক্তির সমাবেশ’

0

‘চট্টগ্রামের ২০ জুলাইয়ের সমাবেশ পরিণত হবে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সমাবেশে। শান্তিপূর্ণ এ সমাবেশ ও মিছিল থেকেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার আন্দোলন জোরদার করা হবে।’

শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকালে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে এক প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিগত দিনে চট্টগ্রামের সমাবেশগুলো সফল হয়েছিলো এক প্রেক্ষাপটে। বর্তমান প্রেক্ষাপট ভিন্ন। বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের শত জুলুম নির্যাতনের পরেও বিএনপি নেতাকর্মীরা এখন জ্বলে পুড়ে খাঁটি সোনায় পরিণত হয়েছে। তারা এখন জেলখানাকে ভয় পায় না। তারা সর্বোচ্চ ত্যাগ শিকার করে সমাবেশকে সফল করবে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের মানুষ বেগম খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতির অভাব অনুভব করছে। জনগণ তাদের প্রিয় নেত্রীকে মুক্ত করতে মাঠে নামতে প্রস্তুত। জনগণের দাবির মুখে এই সমাবেশ হচ্ছে। এই সমাবেশে জনগণের গণবিস্ফোরণ ঘটবে। তিনি ২০ জুলাইয়ের সমাবেশ সফল করতে নেতাকর্মীদের সার্বিক প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান।

মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর ও কেন্দ্রীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক হারুনুর রশিদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু এবং বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান, সমাবেশের প্রধান সমন্বয়কারী বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জয়নাল আবেদীন ফারুক, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, ড. সুকোমল বড়ুয়া, এস এম ফজলুল হক ফজু, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক জালাল উদ্দিন মজুমদার, সহদপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদ, সহধর্মবিষয়ক সম্পাদক দীপেন দেওয়ান, কেন্দ্রীয় শ্রমিকদলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য ফোরকান-ই-আলম, মশিউর রহমান বিপ্লব, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী, রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি মো. শাহ আলম, নোয়াখালী জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসি, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ান, দক্ষিণ জেলার সিনিয়র সহসভাপতি অধ্যাপক শেখ মহিউদ্দিন, চাকসু ভিপি নাজিম উদ্দিন, খাগড়াছড়ি জেলা সাধারণ সম্পাদক এম এন আফছার উদ্দিন, রাঙামাটির সাধারণ সম্পাদক দীপন তালুকদার দীপু, বান্দরবান জেলা সহসভাপতি আবদুল মাবুদ, লক্ষ্মীপুর জেলার শাহাব উদ্দিন শাবু, কর্নেল আজিম উল্লাহ বাহার, ইসহাক কাদের চৌধুরী, নুরুল আমিন, কুতুব উদ্দিন বাহার, জসিম উদ্দিন সিকদার, ফরহাদুল ইসলাম, বিএনপি নেতা এম এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, আবদুর রহিম, এম এ হালিম, অধ্যাপক ইউনুস চৌধুরী, ইদ্রিস মিয়া, কাজী বেলাল উদ্দিন, মো. শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, জাহাঙ্গির আলম দুলাল, আনোয়ার হোসেন লিপু, শাহেদ বক্স, ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন, আলী আব্বাস, এড.আবু তাহের, নূর মোহাম্মদ, মাহবুবুল আলম চৌধুরী, মনজুর আলম চৌধুরী মঞ্জু ও কামরুল ইসলাম।

চট্টগ্রামের বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করবেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম।

জয়নিউজ/হিমেল/বিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...