রাউজানে দুই লাখ মানুষ পানিবন্দি

0

প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে রাউজানের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানিতে তলিয়ে গেছে এলাকার মানুষের বসতবাড়ি, ফসলি জমি ও সড়ক। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে দুই লাখ মানুষ।

চট্টগ্রাম-রাঙামাটি সড়কের জলিলনগর বাস স্টেশন, রাউজান প্রাণিসম্পদ অফিসের সামনে, বেরুলিয়া, দাইয়্যার ঘাটা, সরতের দোকান এলাকায় সড়কের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। যে কারণে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

উপজেলার হাফেজ বজলুর রহমান সড়ক, নোয়াপাড়া সড়ক, দোস্ত মোহাম্মদ চৌধুরী সড়ক, শহীদ জাফর সড়ক, অদুদিয়া সড়ক, চিকদাইর পাঠানা পাড়া সড়ক, সাহেব বাড়ী সড়ক, চিকদাইর নোয়াজিশপুর সড়ক, দুর্গাচরণ সড়ক, এয়াসিন শাহ সড়ক. বিনাজুরী লেলাঙ্গারা সড়ক, জাম্বুইন সড়ক, রাউলী সড়ক, ডাবুয়া গনির ঘাট সড়ক, হলদিয়া ভিলেজ রোড, হযরত আলী হোসেন শাহ সড়কও পানিতে তলিয়ে গেছে।

১০ জুলাই ভোর থেকে ভারি বর্ষণ শুরু হলে রাউজানের সত্তা ও ডাবুয়া খালের ভাঙন কবলিত স্থান দিয়ে পাহাড়ি ঢলের পানি ঢুকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়।

১২ জুলাই ভোর থেকে বৃষ্টি বন্ধ হলে রাউজানের উঁচু এলাকা থেকে পানি নেমে গিয়ে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়।

১৩ জুলাই ভোর থেকে আবার প্রবল বর্ষণ শুরু হলে বৃষ্টির পানি ও পাহাড়ি ঢলের পানি এসে রাউজানের দক্ষিণ হিংলা, ঢেউয়া পাড়া, হাজী পাড়া, শরীফ পাড়া, সুলতানপুর ছিটিয়া পাড়া, বণিক পাড়া, সন্দ্বীপ পাড়া, বড়বাড়ী পাড়া, বাচামিয়ার দোকান, সুলতানপুর কাজী পাড়া, পশ্চিম সুলতানপুর, চিকদাইর ইউনিয়নের দক্ষিণ সর্তা, গহিরা ইউনিয়নের ধলই নগর, নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের ফতেহ নগর, নদীমপুর, পশ্চিম ডাবুয়া লাঠিছড়ি, রাধামাধবপুর, গহিরা মোবারক খীল, পশ্চিম গহিরা, বিনাজুরী ইউনিয়নের লেলাঙ্গারা, জাম্বইন, ইদিলপুর, পশ্চিম বিনাজুরী, রাউজান ইউনিয়নের কেউটিয়া খলিলাবাদ, মঙ্গল খালী, পশ্চিম রাউজান, কদলপুর ইউনিয়নের পশ্চিম কদলপুর, পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের উত্তর গুজরা, আধারমানিক, বড়ঠাকুর পাড়া, হোয়ারা পাড়া, পশ্চিম আধার মানিক, পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া ডোমখালী, বদু মুন্সি পাড়া, মীরধার পাড়া, সরকার পাড়া, উরকিরচর ইউনিয়নের মীরা পাড়া, উরকিরচর, খলিফার ঘোনা, আবুর খীল, হারপাড়া, সার্কদা, নোয়াপাড়া ইউনিয়নের পটিয়াপাড়া, কচুখাইন, মোকামী পাড়া, উভলং, বাগোয়ান ইউনিয়নের গশ্চি, পাচখাইন, কোয়ে পাড়া খেলার ঘাট, পাহাড়তলী ইউনিয়নের খৈয়া খালী, বদু পাড়া দেওয়ান পুর ও মহামুনি এলাকা প্লাবিত হয়।

রাউজান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার নিয়াজ মোরশেদ জয়নিউজকে বলেন, শনিবার (১৩ জুলাই) ভোর থেকে প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে রাউজানের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর জন্য ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয় ২০ মেট্রিক টন চাল, দুইশ প্যাকেট শুকনা খাবার ও একলাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন।

বরাদ্দপ্রাপ্ত চাল ও শুকনা খাবার শনিবার স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মাধ্যমে বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষদের মাঝে বিতরণ করা হয় বলেও জানান নিয়াজ মোরশেদ।

জয়নিউজ/শফিউল/এমজেএইচ
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...