রামগড় ও গুইমারায় পাহাড়ের মাটি পাচার

0

খাগড়াছড়ির রামগড় ও গুইমারায় পাহাড় কেটে মাটি পাচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, কয়েকদিন ধরে রামগড়ের শ্মশানটিলা পাহাড় কেটে পাচারকারিরা মাটি নিয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগে লিখিতভাবে জানালেও পাহাড় কাটা বন্ধ করা যাচ্ছে না। অন্যদিকে, রামগড় গুইমারা মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি টিলা দুইদিন ধরে কেটে সাবাড় করছে দুর্বৃত্তরা। ফলে পাশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনটি পাহাড় ধসের মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

জানা যায়, একটি মহল প্রতিগাড়ি ১৫০০ টাকা দরে মাটি বিক্রি করছে। নিষিদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও এটা বন্ধ করা যাচ্ছে না। উপজেলার বিভিন্নস্থানে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী অবিলম্বে পাহাড় কাটা বন্ধের দাবি জানান।

রামগড় শ্মশানটিলার অধিবাসী মো. এনামুল হক ও পুতুল ত্রিপুরা জয়নিউজকে বলেন, কয়েকদিন ধরে একটি চক্র এখান থেকে মাটি কেটে পাচার করছে। আমরা খুবই উদ্বিগ্ন, কারণ এভাবে মাটি কেটে নিয়ে গেলে আমাদের বসতঘর ধসে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সাম্প্রতিক প্রবল বর্ষণে পাহাড়ের একটি অংশ ধসে পড়ার কথাও তারা জানান।

রামগড় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে ইসরাত জয়নিউজকে বলেন, ২৩ জুলাই টিলা কাটার অপরাধে রাকিবুল ইসলাম নামের এক তরুণকে ভ্রাম্যমাণ আদালত ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। প্রশাসন অপরাধীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক মো. হান্নান জয়নিউজকে বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনা পেলে পুলিশ তাৎক্ষণিক অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এ ব্যাপারে কাউকে ছাড় দেওয়া হয় না।

জয়নিউজ/শ্যামল/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...