এডিস মশার প্রজনন স্থান ধ্বংসের আহ্বান নগরপিতার

0

ডেঙ্গু রোগ নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে এডিস মশার প্রজনন স্থান ধ্বংসের জন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সহযোগিতা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নগরপিতা আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সোমবার (৫ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু রোগ মহামারি আকার ধারণ করার আগেই নগরবাসীর মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। তবে ঢাকার তুলনায় চট্টগ্রামে আক্রান্তের সংখ্যা কম। কিন্তু ঢাকার মৃত্যুর ঘটনায় ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে চট্টগ্রামবাসীও আতঙ্কিত। তবে এই ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে চসিকের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা আপনাদের সহযোগিতা করার জন্য সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে বিগত বছরের তুলনায় পরিচ্ছন্নকর্মী রয়েছে অনেকগুণ বেশী। বর্তমানে পরিচ্ছন্নকর্মীর সংখ্যা ৩ হাজার ৬৪৭ জন। পূর্ব থেকেই কর্মরত ছিল ১ হাজার ৬৬৯ জন এবং ডোর-টু-ডোর প্রকল্পে নিয়োজিত আছে ১ হাজার ৯৭৮ জন। তাছাড়া এসব পরিচ্ছন্নকর্মীদের কাজের তদারকির জন্য রয়েছে ৯২ জন সুপারভাইজার।

এসব পরিচ্ছন্নকর্মীরা নগরীর নালা-নর্দমা পরিস্কার, ডোর-টু-ডোর থেকে ময়লা সংগ্রহ কাজে নিয়োজিত আছে। এডিস মশা রোধে প্রতিটি ওয়ার্ডে নালা-নর্দমায় লার্ভিসাইড ও অ্যাডাল্টিসাইড ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। এই কার্যক্রম আরো জোরদার করতে ফগার মেশিন ও ওষুধ কেনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ঘরে যদি এডিস মশা থাকে তাহলে বাইরে নিরাপদ রেখে কোনো লাভ নেই। আমরা সকলে নিজের কর্মস্থল, বাড়ি-ঘর ও আঙিনা নিয়মিত পরিস্কার রাখলে ডেঙ্গু রোধ করা সম্ভব হবে।

বাড়ি ও আঙিনা এবং নালা-নর্দমায় ময়লা আর্বজনাসহ তিনদিনের অধিক পানি জমে থাকলে অথবা জমে থাকতে দেখলে সঙ্গে সঙ্গে নগরবাসীকে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর, চসিক প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা (মোবাইল নং- ০১৭১২২৫২৬১৫, ০১৮৪২১৯৯১৯৯) এবং অতিরিক্ত প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা (মোবাইল নং- ০১৬৭৫২১৮৪৮৫) এবং চসিক হটলাইন নম্বর ১৬১০৪ যোগাযোগ করে সহযোগিতা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সিটি মেয়র।

এছাড়া জ্বর আক্রান্ত হলে সিটি করপোরেশনের ৪১ ওয়ার্ডের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা এবং চসিক জেনারেল হাসপাতালে বিনামূল্যে ডেঙ্গু জ্বর পরীক্ষা ও চিকিৎসাসহ সেবা গ্রহণের জন্য সিটি মেয়র অনুরোধ জানিয়েছেন।

জয়নিউজ/আরডি/বিআর

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...