মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীদের মাথায় হাত

0

কোরবানি পশুর চামড়া নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। বেশি দামে কিনলেও ট্যানারি মালিকরা দাম অনেক কম বলায় ক্ষতির সম্মুখীন তারা। অনেকে চামড়ার ন্যায্যদাম না পাওয়ায় মসজিদ-মাদ্রাসায় চামড়া দান করে দিচ্ছেন।

সোমবার (১২ আগস্ট) নগরের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা যায়, মৌসুমি ব্যবসায়ীরা ঘরে ঘরে গিয়ে চামড়া সংগ্রহ করছেন। তবে তাদের অভিযোগ যে দামে তারা চামড়া সংগ্রহ করছেন ট্যানারি মালিকরা তার থেকে অনেক কম দামে তাদের কাছ থেকে কিনতে চাচ্ছে।

সোমবার কর্ণফুলি আগ্রাবাদ এলাকায় গরু-ছাগলের চামড়া নিয়ে বসে ছিল মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। তাদের মধ্যে একজন ব্যবসায়ী মো. ফরিদ জয়নিউজকে বলেন, বড় গরুর চামড়া কিনেছি সাতশ’ টাকা দিয়ে। এখন সে চামড়ার দাম ট্যানারি মালিকরা বলছেন চারশ টাকা। যে ছাগলের চামড়া কিনেছি ১৫০ টাকা সে ছাগলের চামড়া বলছে ২০ টাকা। বেশি দামে ক্রয় করে এত কম দামে কিভাবে বিক্রি করব।

আরেক ব্যবসায়ী মো. কামাল বলেন, চামড়া নিয়ে সিন্ডিকেট তৈরি করছে একটা চক্র। যার কারণে কোনো চামড়ার দাম মাত্র মূল্য নেই। আমরা যারা কোরবানের মৌসুমে এই ব্যবসা করি তারা এ কারসাজি বুঝতে পারিনি। এখন মনে হচ্ছে লস দিতে হবে।

জানা যায়, গত বছর ৫ লাখ চামড়া সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও সংগ্রহ হয়েছে সাড়ে ৪ লাখ। এ বছর লবণের দাম স্বাভাবিক রয়েছে। চামড়া সংগ্রহের জন্য আতুরার ডিপো থেকে হামজারবাগ এলাকার অস্থায়ী আড়তগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে।

এ ছাড়া নগরের কালুরঘাট, সিইপিজেড, আগ্রাবাদ, বাকলিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় কাঁচা চামড়া সংগ্রহের জন্য আড়ত তৈরি করা হয়েছে। চট্টগ্রামে ২২টি ট্যানারির মধ্যে এখন টিকে আছে মদিনা ট্যানারি ও রিফ লেদার। ইটিপি না থাকায় মদিনা ট্যানারির কার্যক্রম বন্ধ আছে।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, চট্টগ্রামে চামড়া সংরক্ষণের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না থাকায় ঢাকায় গড়ে ওঠা সিন্ডিকেটের কাছে তারা জিম্মি। একটি চামড়ায় লবণ দেওয়া, শ্রমিক খরচ এবং ঢাকার ট্যানারিতে নেওয়া পর্যন্ত প্রতি ফুট চামড়ায় ১৫ টাকা খরচ হয়।

প্রসঙ্গত, সরকারের নির্ধারণ করা দাম অনুযায়ী, এবার গরুর কাঁচা চামড়ার দাম ঢাকায় প্রতি বর্গফুট ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। সারাদেশে খাসির চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে প্রতি বর্গফুট ১৮ থেকে ২০ টাকা এবং বকরির চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয় প্রতি বর্গফুট ১৩ থেকে ১৫ টাকা।

জয়নিউজ/আরডি/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...