যৌন-প্রজনন স্বাস্থ্যশিক্ষা পাবে মাধ্যমিক শিক্ষার্থীরা

0

সরকারের উদ্যেগে চালু হতে যাচ্ছে ‘যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যশিক্ষা’ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) পরিচালিত ‘জেনারেশন ব্রেক থ্রু’ প্রকল্পের আওতায় এই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে।

চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভগে ২০২১ ও ২০২২ সালে এবং দেশের অন্য ছয়টি বিভাগের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ২০২৩ ও ২০২৪ সালের মধ্যে এই কার্যক্রমের আওতাভুক্ত হবে।

পরীক্ষামূলক কার্যক্রমে সফলতা পাওয়ায় পাঁচ জেলায় ২৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিচালিত বছর এ কার্যক্রম।

প্রকল্পটির পরিচালক ও মাউশির পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, ‘জেনারেশন ব্রেক থ্রু’  প্রকল্পটি ২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত চলমান ছিল। প্রকল্পটি স্বার্থকভাবে মেয়াদ সম্পূর্ণ করেছে।

এ প্রকল্পের উদ্দেশ্যের মধ্যে রয়েছে, ১০ থেকে ১৯ বছরের কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে জেন্ডার সাম্য আচরণ তৈরি করা, কিশোর-কিশোরীদের যৌন স্বাস্থ্য অধিকার সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করা। পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলা, রোলিং প্লে, কুইজ ইত্যাদির মাধ্যমে জেন্ডার সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত বিষয়ে প্রজনন স্বাস্থ্য সচেতনতা করা।

এ প্রকল্পটি কার্যক্রম করার জন্য প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রধান শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। পরে তিনি তার প্রতিষ্ঠানের সব শিক্ষকদের এই ব্যপারে আলাপ আলোচনা করে ধারনা দিবেন। পরে সেখান থেকে ৩ থেকে ৪ জন শিক্ষকদের নির্বাচন করে তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। পাশাপাশি অভিভাবকদের সচেতন করা হবে। দুই বছরে ২৬টি অধিবেশন পরিচালনা করা হবে।

প্রকল্পের প্রথম ধাপে ঢাকা মহানগরের ৬০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ পটুয়াখালী, বরগুনা, বরিশাল শহরের মোট ৩৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে ৫০টি মাদ্রাসাও ছিল।

এ প্রকল্পের দ্বিতীয় ধাপের অর্থায়ন করবে কানাডা যা শেষ হবে ২০২২ সালে।

জয়নিউজি/আরএস/পিডি

 

 

 

আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...