চবি কর্মচারীকে মারধর ও বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির এক কর্মচারীর বাড়ি ভাঙচুর ও তার পরিবারের সদস্যদের মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

ফজলুল করিম খোকন নামে ওই কর্মচারী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের ল্যাব এটেন্ডেন্ট হিসেবে কর্মরত। অন্যদিকে নাজিম শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ও শাটলের বগিভিত্তিক গ্রুপ বাংলার মুখের নেতা

এ বিষয়ে বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর একটি অভিযোগ ও হাটহাজারী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন ওই কর্মচারী।

অভযোগপত্রে খোকন উল্লেখ করেন, ‘২৫ আগস্ট আমি অফিস থেকে বিকাল সাড়ে ৫টার সময় বাড়ি ফেরার পথে পুরাতন বিএনসিসি সংলগ্ন মাঠে নাজিম আমাকে হঠাৎ মারধর শুরু করে। পরে বিষয়টি আরেক ছাত্রলীগ নেতা মামুন মীমাংসা করবে বলে আমাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। তবে ৩ সেপ্টেম্বর আমার বড় মেয়ে পান্না শোভা কলোনির পুকুরঘাটে গেলে নাজিম অতর্কিতভাবে রড দিয়ে তার ওপর হামলা করে। বর্তমানে সে প্রাইভেট মেডিকেলে ভর্তি আছে। ঐদিন বিকেলে সাড়ে ৪টার দিকে নাজিমের বাবা মুজিব ও তার মেয়েসহ শোভা কলোনির মসজিদের সামনে আমাকে এবং আমার ছোট ছেলেকে আক্রমণ করে। বিকেল সাড়ে ৫টায় নাজিম তার সঙ্গীদের নিয়ে আমার ছোট ছেলেকে আবারও ঘরের মধ্যে আক্রমণ করে। পরবর্তীতে একইদিন রাত ৮টার সময় চতুর্থবার নাজিম তার সঙ্গীদের নিয়ে আমার নির্মিত ঘরের দরজা, টিন, মোটরসাইকেল ও ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। আবার আজ (মঙ্গলবার) সকালে আমাকে হুমকি দেয়, আমি যেন ক্যাম্পাস থেকে চাকরি ছেড়ে গ্রামে চলে যাই। এখন আমিসহ আমার পরিবার মারাত্মক হুমকির মধ্যে আছি।’

এ বিষয়ে কথা বলতে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা নাজিম উদ্দিনকে বেশ কয়েকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তবে এটা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিষয়। তারা নির্দেশ দিলে ব্যবস্থা নিতে পারব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী জয়নিউজকে বলেন, অভিযোগ তদন্তের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জয়নিউজ/নবাব/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...