চবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টা থেকে শুরু হয়ে ১ অক্টোবর রাত ১১.৫৯টা পর্যন্ত এ আবেদন করতে পারবে ভর্তিচ্ছুরা। আবেদন ফি ১ অক্টোবর রাত ১১.৫৯টা পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে।


রোববার সকালে চবি ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ভার্চুয়াল ক্লাস রুমে এ প্রক্রিয়া উদ্বোধন করেন চবির রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর, প্রক্টোরিয়াল বডি, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, চেয়ারম্যান ও ভর্তি কমিটির সদস্যরা।

এসময় চবি উপাচার্য বলেন, আমরা গত বছরের ন্যায় প্রত্যেক ইউনিটে ভর্তি প্রক্রিয়া ও আবেদন ফি সমান রেখেছি এবং গত বছরের ন্যায় সব কার্যক্রম নিজস্ব অটোমেশনে সম্পন্ন করা হবে।

২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রতি ইউনিট/উপ-ইউনিটে আবেদন ফি ৪৭৫/- (চারশত পঁচাত্তর) টাকা ও আবেদন প্রসেসিং ফি ৭৫/- (পঁচাত্তর) টাকাসহ সর্বমোট ৫৫০/- (পাঁচশত পঞ্চাশ) টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এর আগে এক সভায় ১ম বর্ষের (স্নাতক সম্মান) ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

‘বি’ ইউনিট ২৭ অক্টোবর , ‘ডি’ ইউনিট ২৮ অক্টোবর , ‘এ’ ইউনিট ২৯ অক্টোবর , ‘সি’ ইউনিট ৩০ অক্টোবর এবং ‘বি ১’ উপ-ইউনিট ও ‘ডি ১’ উপ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩১ অক্টোবর ২০১৯ অনুষ্ঠিত হবে।

এবারের ভর্তি পরিক্ষায় চারটি ইউনিট ও দুটি উপ-ইউনিটের মাধ্যমে নয়টি অনুষদের অধীনে ৫৩ টি বিভাগ/ইনস্টিটিউট (৪৮ টি বিভাগ ও ৫ টি ইনস্টিটিউটে) ৪১৮৯ টি সাধারণ ও ৭৩৭ টি কোটাসহ সর্বমোট ৪৯২৬ টি আসনে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এর মধ্যে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ১৩ টি বিভাগ ও তিনটি ইনস্টিটিউট এ সাধারণ আসন ১৩৪৬টি এবং কোটায় ২০৮টি আসনসহ সর্বমোট ১৫৫৪ টি আসন, বিজ্ঞান অনুষদে পাঁচটি বিভাগ ও একটি ইনস্টিটিউট এ সাধারণ ৫৪৫ টি আসন কোটায় ৯৮টিসহ সর্বমোট ৬৪৩টি আসন, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদে ছয়টি বিভাগে সাধারণ ৬৪০ টি আসন এবং কোটায় ১১২টি সহ সর্বমোট ৭৫২ টি আসন, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে নয়টি বিভাগে সাধারণ ৮১৮ টি এবং কোটায় ১৪৩টিসহ সর্বমোট ৯৬১ টি আসন,আইন অনুষদে একটি বিভাগে সাধারণ আসন ৩০ টি এবং কোটায় ২২টিসহ সর্বমোট ১৩৭ টি আসন, জীববিজ্ঞান অনুষদের নয়টি বিভাগে সাধারণ আসন ৪৮৫ টি এবং কোটায় ৯২টিসহ সর্বমোট ৫৭৭ টি আসন, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের দুটি বিভাগে সাধারণ আসন ১২০ টি এবং কোটায় ২১ টিসহ সর্বমোট ১৪১ টি। শিক্ষা অনুষদের একটি বিভাগে সাধারণ ৩০টি আসন এবং কোটায় ১৯টিসহ সর্বমোট ৪৬ টি, মেরিন সায়েন্স আ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদে দুটি বিভাগ ও একটি ইনস্টিটিউটে সাধারণ ৯০ টি এবং কোটায় ২৫টিসহ সর্বমোট ১১৫ টি আসন।

উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা A-ইউনিটের মাধ্যমে বিজ্ঞান অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ ও মেরিন সায়েন্স আ্যান্ড ফিশারিজ অনুষদভুক্ত সকল বিভিগ/ইনস্টিটিউটে আবেদন করার সুযোগ পাবে। উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ (সকল গ্রুফ) শিক্ষার্থীরা B-ইউনিটের মাধ্যমে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত সকল বিভিাগ/ইনস্টিটিটিউটে (নাট্যকলা,চারুকলা,ও সংগীত বিভাগ ব্যতিত) আবেদনের সুযোগ পাবে। B1-উপ-ইউনিটের মাধ্যমে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত নাট্যকলা বিভাগ, চারুকলা ইনস্টিটিউট ও সংগীত বিভাগে আবেদনের সুযোগ পাবে।

C- ইউনিটে ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীরা ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত সকল বিভাগে আবেদনের সুযোগ পাবে।

D-ইউনিটে সকল গ্রুপ থেকে সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত সকল বিভাগ, আইন অনুষদভুক্ত আইন বিভাগ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত সকল বিভাগ (বিজ্ঞান ও মানবিক গ্রুপ), জীববিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা এবং মনোবিজ্ঞান বিভাগে (মানবিক গ্রুফ) আবেদনের সুযোগ পাবে।

এছাড়া D1- ইউনিটে শিক্ষা অনুষদভুক্ত ফিজিক্যাল এডুকেশন এন্ড স্পোর্টস সায়েন্স বিভাগে আবেদন করার সুযোগ পাবে।
অনলাইনে আবেদনের পর বিকাশ/রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ইউনিট/উপ-ইউনিট প্রতি নির্ধারিত ফি জমা দেওয়া যাবে। আবেদন ফি ৪৭৫ টাকা এবং প্রসেসিং ফি ৭৫ টাকা।

অনলাইনে আবেদনের পর বিকাশ/রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ইউনিট/উপ-ইউনিট প্রতি নির্ধারিত ফি জমা দেওয়া যাবে। ভর্তি ফরমের মূল্য ইউনিট/ উপ-ইউনিট প্রতি ৪৭৫ টাকা। প্রফেসিং ফি ৯০ টাকা থেকে কমিয়ে ৭৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আবেদনকারীকে ১০০ নম্বরের এমসিকিউ ও ব্যবহারিক পরীক্ষায় ( প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) অংশগ্রহণ করতে হবে। আগামী ২৭ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষায় অনুষ্ঠিত হবে।

জয়নিউজ/নবাব/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...