পরিবহন ধর্মঘট: দিনভর ভোগান্তি, সন্ধ্যায় মেয়রের আশ্বাসে প্রত্যাহার

0

দিনভর অসহনীয় ভোগান্তি শেষে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের আশ্বাসে প্রত্যাহার হয়েছে পরিবহন ধর্মঘট।

রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহারের বিষয়টি জয়নিউজকে নিশ্চিত করেন গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু।

তিনি বলেন, নাছির ভাই কয়েকদিনের মধ্যে মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দকে নিয়ে সড়ক ও সেতুপরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেবেন। তার আশ্বাসে আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ডাকা পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিলাম।

আরও পড়ুন: রোববার থেকে বৃহত্তর চট্টগ্রামে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট

এর আগে ৯ দফা দাবি আদায়ে রোববার ভোর ৬টা থেকে চট্টগ্রাম বিভাগে শুরু হয় গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের ডাকা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ জনগণ। এদিন সকাল থেকে হাটহাজারী, নতুনব্রীজ থেকে ছেড়ে যায়নি দূরপাল্লার কোনো বাস।

উল্লেখ্য, তাদের ৯ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- গণ ও পণ্য পরিবহনের কাগজপত্র হালনাগাদ করার জন্য জরিমানা মওকুফ, জরিমানা মওকুফের সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত কাগজপত্র যাচাই বাছাইয়ের নামে হয়রানি বন্ধ, বিআরটিএ ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক ভোক্তা অধিকার আইন প্রয়োগ করে গণ ও পণ্য পরিবহনে কোনো অতিরিক্ত জরিমানা আদায় না করা, হাইওয়ে ও থানা পুলিশ কর্তৃক গাড়ি জব্দ ও রিকুইজিশন বন্ধ, চট্টগ্রাম মেট্টো এলাকায় গাড়ির ইকোনোমিক লাইফের অজুহাতে ফিটনেস ও পারমিট নবায়ন বন্ধ না রাখা, ট্রাফিক পুলিশ কর্তৃক যান্ত্রিক ত্রুটিযুক্ত গাড়ি ছাড়া অন্য কোনো অজুহাত দেখিয়ে গণ ও পণ্য পরিবহন টু বা ডাম্পিং না করা, ড্রাইভার কর্তৃক চালিত গাড়ির রেকার ভাড়া আদায় না করা যাবে, সহজশর্তে চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান এবং কাগজপত্র হালনাগাদের ক্ষেত্রে বিআরটিএ’র কার্যক্রমে ভোগান্তি বন্ধ করা।

জয়নিউজ/পার্থ/এসআই
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...