ধর্ম সৃষ্টি হয়েছে মানবের কল্যাণে: চসিক মেয়র

0

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ধর্ম সৃষ্টি হয়েছে মানবের কল্যাণে। স্বার্থান্বেষী মহল স্বীয় স্বার্থকে রক্ষা করতে যুগে যুগে ধর্মকে ব্যবহার করেছে। আমাদেরকে সকলকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে জনমানুষের কাছে এই অপ্রিয় সত্যকে তুলে ধরতে হবে।

সিটি মেয়র আরো বলেন, একাত্তর সালে এই দেশের মানুষ দুইভাগে বিভক্ত ছিল। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে আর বিপক্ষে। সেদিন ধর্মীয় পরিচয় ছিল না। সেদিন একমাত্র উদ্দেশ্য ছিল পাক হানাদার বাহিনীর হাত থেকে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে রক্ষা করা।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান সম্প্রীতি পরিষদ আয়োজিত সর্বধর্মীয় সংলাপ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃষ্টান সম্প্রীতি পরিষদ গঠন আজ সময়ের দাবি। এ সংগঠন গড়ে তোলার জন্য সংশ্লিষ্ঠদের ধন্যবাদ জানিয়ে সিটি মেয়র সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে বলেন, এ সংগঠনের মাধ্যমে বাঙালির চিরকালীন ঐতিহ্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ধারা অক্ষুণ্ণ রাখতে কাজ করে যাবে এটাই প্রত্যাশা করেন মেয়র।

এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃষ্টান সম্প্রীতি পরিষদের আহ্বায়ক লায়ন দিদারুল আলম চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে স্ব স্ব ধর্মের আলোকে সম্প্রতির উপর বক্তব্য রাখেন নগরের আল ফালাহ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ মোহাম্মদ মুসা, সীতাকুণ্ড শংকর মঠ অধ্যক্ষ স্বামী তপনানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি অধ্যাপক সুকান্ত ভট্টাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি বিভাগের চেয়ারম্যান দীপংকর শ্রীজ্ঞান বড়ুয়া, পটিয়া লংকারাম বিহার অধ্যক্ষ ভদন্ত সুমন প্রিয় ভিক্ষু, চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল ভিকার আর্চ ডায়োসিস ফাদার ল্যানার্ড রিবেরো ও ডি মানিক কস্তাসহ সর্বধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধিরা।

জয়নিউজ/বিআর
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...