মোবাইল চোরের ‘মামা-ভাগিনা‘ সিন্ডিকেট

0

নগরের চোরাই করা মোবাইল কেনাবেচার অন্যতম হোতা ‘মামা ভাগিনা’ সিন্ডিকেটের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন ব্যান্ডের ১৬০টি চোরাই স্মার্টফোন উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) দুপুরে সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন , রাউজানের নদীমপুর এলাকার মৃত দেলা মিয়ার ছেলে দোস্ত মোহম্মদ মানিক (৫৪), সাতকানিয়ার ছদাহা এলাকার কবির আহম্মদের ছেলে খলিলুর রহমান (৩১), লোহাগাড়ার আমিরাবাদের বলি বাড়ির হারুনুর রশিদের ছেলে সাহেদুল ইসলাম ও কুমিল্লার ফজরকান্দি এলাকার মো. জামাল উদ্দিনের ছেলে মো. সোহেল রানা (৩০)। এছাড়া ‘মামা-ভাগিনা’ সিন্ডিকেটের খোরশেদ আলম (৩৫) নামে আরো এক সদস্য পলাতক রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

এদের মধ্যে দোস্ত মোহম্মদ মানিক রিয়াজউদ্দিন বাজারে চোরাই মোবাইল সিন্ডিকেটের মূলহোতা আলোর অন্যতম সহযোগী ছিলেন। র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আলো নিহত হওয়ার পর  নতুন করে ‘মামা-ভাগিনা’ সিন্ডিকেট গড়ে তোলে দোস্ত মোহাম্মদ।

সংবাদ সম্মেলনে সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান বলেন, ছিনতাইকারীরা নগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ছিনতাই করে মোবাইলগুলো রিয়াজউদ্দিন বাজারের চোরা মার্কেটে নিয়ে আসতো। তারা খুব অল্পদামে এই সিন্ডিকেটের কাছে মোবাইলগুলো বিক্রয় করত।

তিনি আরো বলেন, গত রোববার (২৯শে অক্টোবর) লাভলেইন এলাকা থেকে চার ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা নগরের বিভিন্ন এলাকায় শতাধিক ছিনতাই করার কথা স্বীকার করে। পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রিয়াজউদ্দিন বাজারে অভিযান চালিয়ে এই সিন্ডিকেটের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাদের থেকে বিভিন্ন নামি ব্যান্ডের ১৬০টি চোরাই স্মার্টফোন উদ্ধার করা হয়।

জয়নিউজ/রিফাত/পিডি
আরও পড়ুন
লোড হচ্ছে...